চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২২ আগস্ট ২০১৮

সেমিপাকা ভবন পাচ্ছে ফটিকছড়ির সেই রসুলপুর উচ্চ বিদ্যালয়

প্রকাশ: ২০১৭-০৮-২২ ১৭:৩৮:২৯ || আপডেট: ২০১৭-০৮-২২ ১৭:৪৫:১৬

মীর মাহফুজ আনাম
সিটিজি টাইমস প্রতিবেদক

‘খোলা আকাশের নিচে পাঠদান, মেঘ দেখলেই ছুটি ’ শিরোনামে সিটিজি টাইমসে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর ফটিকছড়ির বাগান বাজারের সেই রসুলপুর উচ্চ বিদ্যালয়টি পরিদর্শণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার রায়। মঙ্গলবার (আজ) সকালে তিনি মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌস হোসেন ও স্থানীয় চেয়ারম্যান রুস্তম আলীকে নিয়ে সরেজমিনে বিদ্যালয়টি পরিদর্শণ করেন।

পরিদর্শণ শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিটিজি টাইমসকে বলেন,‘ শ্রেণি কক্ষের অভাবে খোলা আকাশের নিচে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করানোর দৃশ্য দেখে খুব খারাপ লেগেছে। বিষয়টি নিয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক, পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় চেয়ারম্যান রুস্তম আলীর সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছি তিন লক্ষ টাকা ব্যয়ে এখানে তিন কক্ষ বিশিষ্ট একটি সেমিপাকা ভবন করে দেওয়া হবে। যা সরকারের এলজিএসপি (লোকাল গভর্মেন্ট সাপোর্ট প্রজেক্ট) বরাদ্ধ থেকে প্রদান করা হবে।’


উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌস হোসেন বলেন,‘ দুর্ঘম এলাকায় অবস্থিত এ বিদ্যালয়টির নাজুক অবস্থা দেখে আমরা হতবাক হয়েছি। সেমিপাকা ভবনটি নির্মাণ হলে শীঘ্রই তাদের দু:খ লাঘব হবে।’

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুল মালেক উপজেলা প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘আমাদের বিদ্যালয়টিতে এ প্রথম কোন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কিংবা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা পরিদর্শণ করলেন। বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষের অভাব দূর করতে তিন কক্ষ বিশিষ্ট যে সেমিপাকা ভবন করে দেওয়ার আশ্বাস দিেেয়ছেন তা যেন দ্রুত বাস্তবায়ন করে শিক্ষার্থীদের দু:খ লাঘব করেন।’

উল্লেখ্য, বিদ্যালয়টির ঝুঁকিপূর্ণ মাটির দেয়াল দিয়ে তৈরী টিনশেডের ভবন গত ১২ আগষ্ট সকালে প্রবল বর্ষণের ফলে বিধ্বস্ত হয়। এ সময় আহত হয় ৪ শিক্ষার্থী। এতে পাঠদান কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ে। এরপর থেকে পাঠদান বন্ধ না করে কোনভাবে খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান। কোমলমতি শিক্ষার্থীরা নানা দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে গ্রহন করছে পাঠ।’