চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮

নিরাপত্তা পরিষদে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা

প্রকাশ: ২০১৭-০৮-৩১ ১২:০৯:৪৩ || আপডেট: ২০১৭-০৮-৩১ ১৬:০২:৪১

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে রাখাইন ও রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। বুধবার নিউ ইয়র্কে নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা মিয়ানমারের এই দুইপক্ষের মধ্যে সহিংসতা বন্ধ, মানবিক সহায়তা অব্যাহত রাখা ও কোফি আনানের নেতৃত্বে গঠিত রাখাইন পরামর্শক কমিশনের রিপোর্ট বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব দেন।

রাখাইন নিয়ে আলোচনার জন্য যুক্তরাজ্য মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) আগ্রহ প্রকাশ করে এবং বুধবার (৩০ আগস্ট) আলোচনার দিন ধার্য হয়।

কূটনীতিক সূত্র জানায় নিরাপত্তা পরিষদের ১২ থেকে ১৩ সদস্য রাখাইন ও রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিকে আশ্রয় দেওয়ার জন্য তারা বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সাহায্য অব্যাহত রাখার বিষয়ে আশা প্রকাশ করা হয়। প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী এ আলোচনা চলে। সূত্র আরও জানায়, বৈঠকের শুরুতে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে সহকারী মহাসচিব মিরোস্লাভ ইয়াংকা রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে একটি বক্তব্য দেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, রাখাইনে জাতিসংঘের অঙ্গ সংগঠনগুলোকে অত্যন্ত সীমিত আকারে কাজ করতে হচ্ছে এবং এরফলে তাদের কাছে গোটা পরিস্থিতির পূর্ণ চিত্র নেই। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে রাখাইন পরিস্থিতি দেখার জন্য একটি ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু মিয়ানমারের বিরোধীতা করার কারণে তারা রাখাইনে যেতে পারেনি। এ বিষয়টি নিয়েও নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনা হয়।

পরবর্তীতে এ ধরনের আলোচনা আর হবে কিনা জানতে চাইলে সূত্র জানায়, পরিস্থিতি খারাপ হলে ভবিষ্যতে আবার আলোচনা হতে পারে।

আগস্ট মাসের ২৫ তারিখে রাখাইন রাজ্যে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৮০ জনেরও বেশি রোহিঙ্গা ও ১২ জন পুলিশ নিহত হয়। এরপর মিয়ানমার সামরিক বাহিনী নিরীহ ও নিরস্ত্র রোহিঙ্গা জনগোষ্টির ওপর হামলা চালায়। গত শুক্রবার থেকে এ পর্যন্ত ১৮হাজার ৫০০ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।