চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

চট্টগ্রামে প্রেমের নামে অবৈধ সম্পর্কে জড়াচ্ছে ছাত্রছাত্রীরা

প্রকাশ: ২০১৭-০৮-২৯ ১৭:৩৮:৪৮ || আপডেট: ২০১৭-০৮-৩০ ১৩:১০:৫০

পৃথিবীর সৃষ্টিলগ্ন থেকেই চলে এসেছে প্রেম-ভালোবাসা। এটি একটি পবিত্র বন্ধন। সেই প্রেম-ভালোবাসার নামে সমাজে প্রতিনিয়ত চলছে অশ্লীলতা ও ধোঁকাবাজি। ভালোবাসার নামে ছেলে-মেয়েরা নষ্ট করছে নিজেদের জীবন। সরে যাচ্ছে পরিবার থেকে। বর্তমান সমাজের আবেগ মিশ্রিত অশ্লীল ভালোবাসা শুধু জীবন কেড়ে নেয় না বরং একটা পরিবারকে সমাজ অপমানিত, লাঞ্ছিত করে। সমাজে পরিবারের সম্মান ধূলিসাৎ করে দেয়। সুন্দরভাবে সমাজে জীবন যাপনে বাধা সৃষ্টি করে কিন্তু, তবুও আমরা আবেগের বশীভূত হয়ে ছুটে চলি ভালোবাসা নামক মরীচিকা, অস্তিত্বহীনের পিছু।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন পার্কে দেখা যায় স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা দিনের পর দিন ক্লাস ফাঁকি দিয়ে প্রেমের দোহাই দিয়ে করছে অশ্লীলতা। আবার এমনও নজির আছে প্রেমিক প্রেমিকা একই সাথে করছে নেশা এবং আবদ্ধ হচ্ছে শারীরিক সম্পর্কে। বর্তমান সমাজে প্রেম ভালোবাসা মানে শারীরিক সম্পর্কের মধ্যে সীমাবদ্ধতা থাকা। চট্টগ্রামের বিভিন্ন পার্কসহ নামিদামি রেস্টুরেন্টে শিক্ষার্থীদের চলছে অবাধ মেলামেশা।

একটি ছেলের প্রেমিকা নেই তার মানে সে স্মার্ট না, এমনই মনে করে সে নিজেকে। বহির্বিশ্বের মত আমাদের সমাজেও এখন চলছে লিভ টুগেদার। স্বামী-স্ত্রীর নাম দিয়ে থাকছে একই ফ্ল্যাটে মাসের পর মাস। তারা নিজেরাও জানে না তাদের ভবিষ্যৎ কি। স্কুলের আশপাশে বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে করছে অশ্লীলতা।দেখেও না দেখার ভান করে সরে যাচ্ছে বিভিন্ন পেশার মানুষ। প্রেমিক প্রেমিকাকে ছোট ছোট হোটেল গুলো ভাড়া দিচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা।

বাবা মার কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নিয়ে খরচ করছে প্রেমিকার পিছনে। অন্যদিকে পিছিয়ে যাচ্ছে নিজের জীবনের স্বপ্ন থেকে। ধোঁকা খাচ্ছে ছেলে মেয়ে উভয়। শৃঙ্খলা সমাজ পরিণত হচ্ছে বিশৃঙ্খলায়, এর জন্য দায়ী করছে একে অপরকে। ভালোবাসার নামে অশ্লীল, নোংরা খেলা থেকে বিরত রাখতে হবে নিজেকে। তাহলেই আমরা ফিরে একটি সুস্থ সমাজ।