টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

‘ড্রীমক্যাচার আইটি’ তে পাইথন মিটআপ অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রাম, ০৭  জুলাই ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): প্রোগ্রামিং ভাষা ‘পাইথন’ বর্তমানে সারা পৃথিবীর প্রোগ্রামারদের কাছে অনেক জনপ্রিয়। কারণ,পাইথনে সিম্পল কোডিং সিনট্যাক্স, লিস্ট, টুপল, ডিকশনারি ও সেটের মতো চমৎকার ডেটা কাঠামো আছে।

এছাড়াও রয়েছে কার্যকর স্ট্যান্ডার্ড লাইব্রেরি এবং শক্তিশালী অনলাইন কমিউনিটি যা পাইথনের জনপ্রিয়তার পেছনে অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে কাজ করছে।

বর্তমানে বাংলাদেশেও এ জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়েছে। এদেশের পাইথন প্রোগ্রামারদের রয়েছে নিবিড় পারস্পরিকতা।আর এজন্যই এ প্রোগামিং ভাষাতেই তৈরি হয়েছে দারুণ কিছু সফটওয়্যার।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)-এর অটোমেশনের লক্ষ্যে নির্মিত ‘ওয়েব বেইজড ডেটাবেজ’ সফটওয়্যারটি পাইথন দিয়েই তৈরি।

এটি তৈরি করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং মুক্ত সফটওয়্যার লিমিটেড।

ঢাকা, খুলনা, সিলেটের বিভাগগুলোতে পাইথন প্রোগ্রামারদের ভালো কমিউনিকেশন থাকলেও এ দিকে পিছিয়ে পড়েছেন চট্টগ্রামের পাইথন ডেভেলপাররা। ভালো প্রোগ্রামিং স্কিল থাকা সত্ত্বেও আঞ্চলিক কমিউনিটির অভাবে তারা অনেকটা দিশেহারার মতো হয়ে পড়েছেন।

ঠিক এ সময়েই তাদের সবাইকে একটি কমিউনিটির আওতায় নিয়ে আসতে এগিয়ে এসেছে চট্টগ্রামের ওয়েবসাইট এবং সফটওয়্যার নির্মাতা কোম্পানী ‘ড্রীমক্যাচার আইটি”।

এরই প্রেক্ষিতে বিগত ৬ই জুলাই’১৭(বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিত হয় চট্টগ্রামের পাইথনপ্রেমীদের প্রথম মিটআপ।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট পাইথন ডেভেলপার ওয়াসী মোহাম্মদ আবদুল্লাহ (সিইও, ড্রীমক্যাচার আইটি) এবং সফটওয়্যার ইঞ্জিয়ার নওরীন ইদ্রিস(ম্যানেজিং ডিরেক্টর, ড্রীমক্যাচার আইটি)।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাইথনপ্রেমী প্রোগ্রামারদের মিলনমেলায় পাইথনের ব্যবহার এবং সুযোগ সুবিধা আলোচনায় ওয়াসী মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন – ‘পাইথন এমন একটি প্রোগ্রামিং ভাষা যার ব্যবহার এখন প্রায় সর্বত্র। এটি সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় মেশিন লার্ণিং ও ডাটা সায়েন্সে। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট পাইথনের জ্যাঙ্গো (django) ফ্ল্যাস্ক ইত্যাদি ফ্রেমওয়ার্ক গুলো খুবই জনপ্রিয়।

এছাড়াও, বিভিন্ন অটোমেশন সফটওয়্যার নির্মাণ, বায়ো ইনফরমেটিকস, তথ্য বিশ্লেষণ, ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং, ওয়েব ক্রলার তৈরিতেও পাইথনের ব্যাপক ব্যবহার রয়েছে। ”

কোম্পানীর ম্যনেজিং ডিরেক্টর নওরীন ইদ্রিসের ভাষ্যে উঠে আসে – “প্রোগ্রামারদের সহযোগিতায় ড্রীমক্যাচার আইটির এগিয়ে আসাটা ভবিষ্যতেও চলমান থাকবে। পাইথন প্রোগ্রামারদের সুবিধার্থে তিনি ‘Pyholic internship” নামের স্বল্প সময়ের ইন্টার্ণশীপের ব্যবস্থা রাখবেন বলে আস্থা ব্যক্ত করেন।”

মিটআপের একটি সেশনে ড্রীমক্যাচার আইটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ইকরামুল আলম পাইথনের বেসিক কিছু প্রোগ্রাম রান করে দেখান এবং Jupyter Notebook এর ব্যবহারের সুবিধা বর্ণনার পাশাপাশি ওয়েবসাইট পার্সিং এন্ড স্ক্র্যাপিং এর ধারণা প্রদান ও বিগিনারদের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু তথ্যের রিসোর্স সম্পর্কে আলোচনা করেন।

উপস্থিত প্রোগ্রামারদের প্রশ্নোত্তরপর্ব শেষে টীম ড্রীমক্যাচার আইটির সাথে ফটোসেশনের মাধ্যমে বিকেল চারটা থেকে শুরু হওয়া পাইথন মিটআপ প্রোগ্রামটি সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে শেষ হয়।

Website: https://www.dreamcatcherit.com
Facebook Page: https://www.facebook.com/dreamcatcher.it/

মতামত