টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে চাকরিচ্যুত পুলিশ কর্মকর্তার বিচার শুরু

চট্টগ্রাম, ০৫  জুলাই ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):চট্টগ্রামে অস্ত্র মামলার আলামত গায়েব করার অভিযোগের মামলায় চাকরিচ্যুত পুলিশের সাবেক এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরু হয়েছে। বুধবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মীর রুহুল আমিন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

অভিযুক্ত মো. দেলোয়ার হোসেন চট্টগ্রাম আদালতের মহানগর মালখানায় উপপরিদর্শক (এসআই) হিসেব কর্মরত ছিলেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী কাজী সানোয়ার হোসেন বলেন, মামলার আলামত গায়েবের মামলায় সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা দেলোয়ারের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে আদালত। তবে তিনি পলাতক। আরেক আসামি কামাল পাশাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

আদালত সূত্র জানায়, ১৯৯৬ সালের ২৫ নভেম্বর চট্টগ্রাম নগরের ঝাউতলা এলাকা থেকে মো. নবী হোসেন ও মো. আবুল কাশেম নামের দুই ব্যক্তিকে একটি এলজিসহ গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। জব্দ তালিকা তৈরি করেন গোয়েন্দা পুলিশের তৎকালীন এসআই বি এম কামাল পাশা। পরে তিনি জব্দ করা আলামত মালখানায় জমা দেন। ২০০২ সালে ওই অস্ত্র মামলার রায়ে আসামিদের ১০ বছরের কারাদন্ড দেন আদালত।

আদালত রায়ে উল্লেখ করেন, ‘জব্দকৃত অস্ত্রটি পুলিশ আলামত হিসেবে যথাসময়ে আদালতে দাখিল না সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিগণের ওপর দায় আরোপক্রমে ব্যবস্থা নেওয়া অপরিহার্য।’

আদালতের নির্দেশে ঘটনাটি অনুসন্ধান করে পুলিশের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ২০০৪ সালে মামলা করে তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরো। আদালতের নির্দেশে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ বিভাগীয় তদন্ত করে। তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় দেলোয়ার হোসেনকে চাকরিচ্যুত করা হয়। আর কামাল পাশা বর্তমানে অবসরে আছেন। তদন্ত শেষে গত বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি দেলোয়ার ও কামাল পাশার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় দুদক।

মতামত