টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সেমিফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কে?

চট্টগ্রাম, ১১ জুন ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):   অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডকে টপকে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টের শেষ চারে খেলার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে যাচ্ছে টাইগাররা। গ্রুপ ‘এ’তে রানার্সআপ হয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। সেমিতে টাইগারদের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত বা দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে অস্বাভাবিক কোনো ফলাফল হলে পাকিস্তান বা শ্রীলঙ্কার সঙ্গেও সেমিতে দেখা হয়ে যেতে পারে বাংলাদেশের।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জনের ব্যাপারটা বাংলাদেশের হাতে পুরোপুরি ছিল না। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জিততে হতো টাইগারদের। সঙ্গে অস্ট্রেলিয়াকে হারতে হতো ইংল্যান্ডের কাছে। তবে গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ উইকেটের স্মরণীয় জয়ে নিজেদের কাজটা ভালোভাবেই সেরে রেখেছিল বাংলাদেশ। আর শনিবার অজিরাও হয়েছে ব্যর্থ। ইংল্যান্ডের কাছে বৃষ্টি আইনে ৪০ রানে হেরেছে অস্ট্রেলিয়া। তাতে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে অজিরা। বাংলাদেশ উঠেছে সেমিফাইনালে।

মাশরাফি-সাকিব-তামিম-মুশফিকদের ফাইনালে খেলার স্বপ্নটাও নিশ্চয়ই ডালপালা মেলতে শুরু করেছে। অবে তার আগে পেরুতে হবে সেমির বাধা। গ্রুপ ‘বি’র চ্যাম্পিয়ন দলের সঙ্গে শেষ চারে লড়তে হবে বাংলাদেশকে। তবে মজার ব্যাপার হলো ঐ গ্রুপের চার দলেরই সুযোগ আছে সেমিফাইনালে ওঠার!

গ্রুপ ‘বি’ র চারটি দলই জিতেছে একটি করে ম্যাচ। হেরেছেও একটি করে ম্যাচে। চারদলেরই অর্জন সমান দুই পয়েন্ট। রান রেটে এগিয়ে থেকে গ্রুপ ‘বি’র শীর্ষস্থানে ভারত। দ্বিতীয় স্থানে দক্ষিণ আফ্রিকা। এর পরের দুটি জায়গা যথাক্রমে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের দখলে। তাতে অঘোষিত কোয়ার্টার ফাইনালে রূপ নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা-ভারত ও শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান ম্যাচ দুটি।

রান রেটে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে অনেক পিছিয়ে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কার রান রেট -০.৮৭৯ আর পাকিস্তানের রান রেট -১.৫৪৪। অন্যদিকে ভারতের রান রেট +১.২৭২। দক্ষিণ আফ্রিকার +১। আগামীকাল রোববার ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা পরস্পরের মুখোমুখি হচ্ছে। সেক্ষেত্রে জয় পাওয়া দলের রান রেট বেড়ে যাবে আরও। তাই ভারত বা দক্ষিণ আফ্রিকাকেই সম্ভাব্য গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ধরা হচ্ছে। তবে শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান ম্যাচে জয়ী দল যদি অনেক বড় ব্যবধানে জেতে তবে রান রেট পরিবর্তনও হয়ে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং রানার্সআপে আসতে পারে পরিবর্তন।

তবে সেমিতে প্রতিপক্ষ কে হবে তা নিয়ে টাইগারদের খুব বেশি মাথাব্যথা থাকার কথা নয়। পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ জেতার নজির রয়েছে বাংলাদেশের। গেল এপ্রিলে শ্রীলঙ্কাকে তো তাদের মাঠেই রুখে দিয়েছে। সেসব সুখস্মৃতি নিয়েই ১৫ জুন দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মাঠে নামবে মাশরাফিবাহিনী। সেদিন নিশ্চয়ই আবারো নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় জয়ের মতো আরেকটি জয়ের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে চাইবেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যরা!

মতামত