টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ফটিকছড়িতে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

মীর মাহফুজ আনাম
সিটিজি টাইমস প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম, ০৮ জুন ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):  ফটিকছড়ি উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে হামলার শিকার পরিবারের সদস্যবৃন্দ। বৃহস্পতিবার(আজ) বিকেলে আজাদী বাজারের একটি কমিউনিটি সেন্টারে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাবেক ইউপি সদস্য নুরুল আলম।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ধর্মপুরের চিহ্নিত সন্ত্রাসী, যুদ্ধাপরাধী সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী (সাকা) র ক্যাডার কামাইল্যোর অত্যাচারে আমরা অতিষ্ট। এই সন্ত্রাসী পুলিশের ভয়ে দীর্ঘদিন বিদেশে পালিয়ে ছিল। সম্প্রতি বাড়িতে এসে আবার বেপরোয়া হয়ে উঠে। গত ৭ জুন বুধবার সকালে একই এলাকার বয়োজৈষ্ঠ নুরুল ইসলাম বাজারে যাওয়ার সময় তার গতিরোধ করে অতর্কিত হামলা চালায়। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করতে চায়। তার চিৎকারে ছোট ছেলে শাহাদাৎ এগিয়ে আসলে তাকে ধারালো চুরি দিয়ে আঘাত করে। এ সময় নুরুল ইসলাম (৬৫) গলায়, চোখে ও কন্ঠনালীতে মারাত্মক জখম হয়। শাহাদাৎ (১৫) হাতের কজ্বিতে কেটে যায়। শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়। তিনি আরো বলেন, এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে সেই সন্ত্রাসী তাদের আঘাত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে আহত নুরুল ইসলাম বাদি হয়ে সন্ত্রাসী কামাইল্যের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ দেন।

পরে খবর পেয়ে সেই সন্ত্রাসী কামাইল্যে ফটিকছড়ি থানায় আহতদের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, স্থানীয় একটি পত্রিকায় ঘটনাটি নিয়ে মিথ্যা বানোয়াট একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে বৃহস্পতিবার। যেখানে নাম ঠিকানা এখানকার প্রকাশ করলেও ছবি দেওয়া হয়েছে কোথাকার আটককৃত আসামীর ! বাবার আহত হওয়া নুরুল ইসলামের নামে পূর্বে লিখা হয়েছে মৃত ! যা নিয়ে হাস্যরস সৃষ্টি হয়। আমরা এ ধরণের বানোয়াট সংবা প্রচারেরও তীব্র নিন্দা জানাই।’

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে আহতরা জানান, এই সন্ত্রাসী কামাইল্যে ২০০৬ সালে রোজার ইফতারের সময় আজাদী বাজারে সন্ত্রাসী হামলা করেন। তখন তার ও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে ফটিকছড়ি থানায় মামলা হয়েছিল।

এসময় আহত নুরুল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন, পেয়ারু, মাওলানা নুরুল আবছার, মাওলানা ইলিয়াছ, হারুন সওদাগর, হাসান ও জমিল উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

মতামত