টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সাতকানিয়ায় ত্রিশ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহক অন্ধকারে

শহীদুল ইসলাম বাবর
সিটিজি টাইমস প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম, ০২ জুন ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):: দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ঘুর্ণিঝড় মোরায় আঘাত হানার দীর্ঘ পাচঁ দিনেও পুরোপুরি সচল হয়নি বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। চট্টগ্রাম-১ এর অধীনে সাতকানিয়া উপজেলার অন্তত ৩০ হাজার গ্রাহক এখনো বিদ্যুৎ সংযোগ পাইনি। ফলে অন্ধকারে রয়েছে বিশাল জনগোষ্টি। তবে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তারা বলেছেন, ঘুর্ণিঝড় মোরায় ক্ষতিগ্রস্থ বিদ্যুৎ লাইন সচল করতে কর্মীরা কাজ করে যাচ্ছে। লাইন সচল হলে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে।

সূত্রে জানা যায়,সাতকানিয়ায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর অধীনে সাতকানিয়ার কেওচিয়া, ঢেমশা, বাজালিয়া, পুরানগড়, ধর্মপুর, কালিয়াইশ, ঢেমশা, পশ্চিম ঢেমশা, এওচিয়া, মার্দাষা, সোনাকানিয়া, আমিলাইশ, চরতী, কাঞ্চনা এলাকা মিলিয়ে প্রায় ৪৬ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহক রয়েছে। মোরার আঘাতে পুরো উপজেলায়ই বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এর মধ্যে ১৭টি বৈদ্যুতিক খুটি ভেঙ্গে গেছে। ১২শ স্থানে ক্যাবল ছিড়ে গেছে। মোরার আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার পর থেকেই কর্মীরা মেরামত কাজ শুরু করে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি জায়গায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। সাতকানিয়া সদর ইউনিয়নের মুন্সি আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘুর্ণিঝড় মোরায় আঘাত হানার পর বেশ কয়েক দিন অতিবাহিত হলেও এখনো পর্যন্ত বিদ্যুৎ ব্যবস্থা সচল হয়নি। বৈদ্যুতিক ক্যাবলের উপর ভেঙ্গে পড়া গাছ সমূহ পরিস্কার করার কাজ গত শুক্রবার বিকালে সমাপ্ত হয়েছে। বিশাল এলাকা অন্ধকারে থাকায় চুরি-ডাকাতিসহ নানা অপরাধ কর্মের আশংকা করা হচ্ছে।এ ব্যাপারে সাতকানিয়া পল্লী বিদ্যুতের পরিচালক আব্দুস সোবহান সিটিজি টাইমসকে বলেন, ঘুর্ণিঝড় মোরার আঘাতে পল্লী বিদ্যুতের বেশ কয়েকটি খুটি ভেঙ্গে গেছে। মেরামত কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি জায়গায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। বাকি জায়গায়ও দ্রুত সংযোগ দেওয়া হবে।

মতামত