টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সব ধর্মের মানুষকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ১০ মে ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সব ধর্মের মানুষকেই ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে শান্তিপূর্ণ একটি দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে গড়ে তোলাই সরকারের লক্ষ্য।’ এ লক্ষ্য পূরণে সবার সহযোগিতা চান প্রধানমন্ত্রী।

বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে মঙ্গলবার (৯ মে) গণভবনে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় গুরু ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে গণভবনে যান বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী ধর্মীয় গুরু ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

গণভবনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সব ধর্মের মানুষের সমান অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বাংলাদেশকে মর্যাদাশীল রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা হবে। যারা লুটেরা-দুর্নীতিবাজ, যারা সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ তৈরি করে, তাদের কোনও স্থান এই দেশের মাটিতে হবে না। বাংলাদেশের মানুষ শান্তি চায়। আমরা চাই, সারাদেশে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষ সমান অধিকার নিয়ে বসবাস করবে। ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়, ধর্মনিরপেক্ষতা মানে সব ধর্মের মানুষ তার ধর্ম শান্তিতে পালন করবে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা দেশকে অসাম্প্রদায়িক চেতনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। একটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বাংলাদেশে আর্থসামাজিক উন্নয়নই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।’

রাজনীতির নামে মানুষ হত্যা ও সম্পদহানির মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে, সে বিষয়ে দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমাদের এই দেশে একেক সময় একেকটা ঝড় আসে, একটা তাণ্ডব হয়। মানুষকে পুড়িয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে, ঘর-বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে, গাড়ি-ঘোড়া-রেল-লঞ্চ কোনোকিছুই তাদের তাণ্ডব থেকে রেহাই পায়নি। রাজনীতির নামে, আন্দোলনের নামে জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করা— এই ধরনের সন্ত্রাসী ঘটনা যেন বাংলাদেশের মাটিতে আর না ঘটে, সেটাই আমরা চাই।’

একটি মর্যাদাশীল জাতি হিসেবে বিশ্বে বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠায় বৌদ্ধ ধর্মসহ সব ধর্মের অনুসারীদের দেশের উন্নয়নে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অধীন বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট গণভবনের সবুজ লনে এই শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীরবাহাদুর উশৈ সিং বক্তব্য রাখেন। এসময় সংঘ নায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো, উপসংঘ প্রধান রাজ সত্যপ্রিয় মহাথেরো, পার্বত্য চট্টগ্রামের বৌদ্ধ ভিক্ষু সংস্থার সভাপতি প্রজ্ঞানন্দ মহাথেরো, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া, বৌদ্ধ কল্যাণ সংঘের ট্রাস্টি সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি দয়াল কুমার বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বৌদ্ধ ধর্মগুরু এবং সংঘ নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এসময় প্রধানমন্ত্রী বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের কর্মকাণ্ডের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে প্রকাশিতএকটি ব্রশিয়ারের মোড়ক উন্মোচন করেন।

মতামত