টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রাম চেম্বার নির্বাচন : ৩৩ জনের মনোনয়ন দাখিল

চট্টগ্রাম, ০৯ মে ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):: আগামী ১৪ জুন অনুষ্ঠিত হবে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাণিজ্য সংগঠন চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের নির্বাচন।

এই নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক আলোচনা থাকলেও এবারের নির্বাচন কার্যক্রম অনেকটা নিরুত্তাপ। নির্বাচনে ২৪টি পরিচালক পদে ৩৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র বাছাই এবং আগামী ২০ মে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন।

এবার অনেকটা নীরবে চট্টগ্রাম চেম্বারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গতকাল সোমবার ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। বিভিন্ন সময়ে অনেকে মনোনয়নপত্র নিলেও গতকাল একদিনেই ৩৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

চট্টগ্রাম চেম্বারের দাপ্তরিক সূত্রে জানা যায়, চার ক্যাটাগরির ২৪ জন পরিচালক চেম্বার পরিচালনা করেন। এর মধ্যে অর্ডিনারি গ্রুপের ১২ জন, অ্যাসোসিয়েটস ক্লাসের ৬ জন, টাউন অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপের ৩ জন এবং ট্রেড গ্রুপের ৩ জন পরিচালক চেম্বারের ভোটারদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হন। নির্বাচিত ২৪ জন পরিচালক নিজেদের মধ্য থেকে একজন সভাপতি, একজন সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং একজন সহ-সভাপতির সমন্বয়ে চেম্বার প্রেসিডিয়াম নির্বাচিত করেন।

গতকাল বিকেল পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে ট্রেড গ্রুপে চিটাগাং জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সৈয়দ জামাল আহমদ, চিটাগাং মিল্ক ফুড ইম্পোটার্স অ্যান্ড ডিলার্স গ্রুপের মোহাম্মদ মাহবুবুল হক চৌধুরী এবং চিটাগাং ডাইস অ্যান্ড ক্যামিকেল ইম্পোটার্স অ্যান্ড ডিলার্স গ্রুপের মোহাম্মদ ওমর হাজ্জাজ মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এই ক্যাটাগরিতে তিনজন পরিচালকের পদ রয়েছে। বাড়তি কোনো প্রার্থী না থাকায় ওই তিনজন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষিত হবেন বলে জানা গেছে।

একই ভাবে টাউন অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপের বোয়ালখালী অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি থেকে জহুরুল আলম, পটিয়া অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি থেকে মোহাম্মদ হাবিবুল হক এবং রাঙ্গুনিয়া অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি থেকে আবদুল মান্নান সোহেল পরিচালক পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এই ক্যাটাগরিতে পরিচালকের তিনটি পদ রয়েছে। এতে এই গ্রুপেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন ওই তিনজন।

অ্যাসোসিয়েট ক্লাসের ৬টি পরিচালক পদে সর্বমোট ৮জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হচ্ছেন আলম ট্রেডিং করপোারেশনের মাহবুবুল আলম, চৌধুরী ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন, শাহ ডেইরির মাহফুজুল হক শাহ, জেএন শিপিং লাইন্সের জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, সুপার মোজাইক কোম্পানির এস এম শামসুদ্দীন, মোসম্যাক্সের এস এম নুরুল হক, সাব্বির ট্রেডিং এর সগীর আহমদ এবং বনফুল অ্যান্ড কোম্পানির এম এ মোতালেব। এই গ্রুপ থেকে অন্তত দুজনের মনোনয়নপত্র বাছাইকালে বাতিল বা প্রত্যাহার করা না হলে নির্বাচনের মাধ্যমে ছয় পরিচালক নির্বাচিত হবেন।

অর্ডিনারি ক্লাসের ১২ জন পরিচালক পদে সর্বমোট ১৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হচ্ছেন এস বি করপোরেশনের দিদারুল আলম এমপি, ইলেক্ট্রো মার্ট লিমিটেডের নুরুন নেওয়াজ সেলিম, সিলভার সিন্ডিকেটের একেএম আকতার হোসাইন, বনফুল অ্যান্ড কোম্পানির এম এ মোতালেব, রাজা করপোরেশনের কামাল মোস্তফা চৌধুরী, নাহার এগ্রো কমপ্লেক্স লিমিটেডের রাকিবুর রহমান টুটুল, আরএসবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল লিমিটেডের অঞ্জন শেখর দাশ, মাল্টি স্টিল কাস্টিং লিমিটেডের হাবিব মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ করপোরেশনের মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, জাহেদ ব্রাদার্সের জাহেদুল হক, ইফতেখার এন্টারপ্রাইজের আরিফ ইফতেখার, এস জামিল ব্রাদার্সের সারোয়ার হাসান জামিল, এম এন নিটওয়্যার লিমিটেডের মঈনুদ্দীন আহমেদ (প্রথম সহ সভাপতি বিজিএমইএ), এশিয়ান অ্যাপারেলস লিমিটেডের এম এ সালাম, এস এস এন্টারপ্রাইজের সামীর সিকান্দর (প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিমের ছেলে), আফরোজা অয়েল লিমিটেডের আনিসুজ্জামান চৌধুরী, স্মার্ট গ্রুপের (স্মার্ট জিনস লিমিটেডের) মজিবুর রহমান, টি কে গ্রুপের (ম্যাপ সুজ লিমিটেডের) হাসনাত মোহাম্মদ আবু ওবায়দা ও কেএসআরএম স্টিল লিমিটেডের শাহরিয়ার জাহান মনোয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মঙ্গলবার যাছাই-বাছাইকালে বা আগামী ২০ মে প্রত্যাহারের শেষ দিনে এই গ্রুপ থেকে যদি সাতজন প্রার্থী প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করেন তাহলে নির্বাচনের মাধ্যমে ১২ জন পরিচালক নির্বাচিত হবেন।

মতামত