টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চুল পরিমাণ দুর্নীতি করিনি : আ জ ম নাছির

চট্টগ্রাম, ১৫ এপ্রিল ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন পরিচালনার ক্ষেত্রে ‘চুল পরিমাণ’ দুর্নীতি করেননি বলে জানিয়েছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। শনিবার দুপুরে নগরের ৯ নম্বর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড কার্যালয়ে এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এ কথা বলেন।

জঙ্গিবাদ দমন, মাদক নিয়ন্ত্রণ ও নিয়মিত পৌরকর পরিশোধে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এ সভার আয়োজন করা হয়।

সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর উদ্দেশ্যে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ১ বছর ৮ মাস ২০ দিন হলো দায়িত্ব নিয়েছি। আ জ ম নাছির চুল পরিমাণ দুর্নীতি করেনি। কেউ প্রমাণ দিতে পারবেন না। চ্যালেঞ্জ করে বলছি। টুপি একটা মাথায় দিলে হবে না। মিথ্যাচার করবেন না। মেয়র আমি নিজের ইচ্ছেতে হইনি। দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। নগরবাসী ভোট দিয়েছেন। আমাকে খাটো করা মানে নগরবাসীকে অপমান করা। শুধু গলাবাজি করলে মানুষের প্রতি দরদ হয় না।

সিটি মেয়র বলেন, পাঁচ বছর পর কর পুনর্মূল্যায়ন আইনি বাধ্যবাধকতার কারণেই করা হচ্ছে। এটি না করলে আমাকে ব্যর্থ বলা হবে। বরখাস্ত করা হবে। আদালতের সহানুভূতিও পাব না। ১৯৮৫ সালে চসিকের যে পৌরকর ছিল। ১৭ বছর মেয়র ছিলেন তিনিও (মহিউদ্দিন) তা অনুসরণ করেছেন। আল্লাহ রাসুলের নামে শপথ করে বলেন। প্রয়োজনে গোলটেবিল করব। ইতিমধ্যে অনেক দাওয়াত দিয়েছি, আসেননি। মনজুর আলম ভাইয়ের আমলে ১৪ হাজার অ্যাসেসমেন্ট করেছেন। আমি সব নিষ্পত্তি করেছি। সাবেক মেয়র যা ধার্য করেছেন তা থেকে আমি আরও কমিয়ে দিয়েছি।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ইসলামের নামে জঙ্গি হামলা হচ্ছে। ইসলামে পেশিশক্তি দিয়ে, জুলুম করে, আত্মঘাতী হয়ে কোনো কিছু অর্জনের সুযোগ নেই। যারা আত্মঘাতী হচ্ছে তারা ভুল পথে পরিচালিত হচ্ছে। নিরীহ মানুষকে হত্যা করা ইসলাম অনুমোদন করেনি। জঙ্গি হামলা কোনোভাবেই কল্যাণকর নয়, প্রচন্ড ক্ষতিকর। মাদক ইসলামে হারাম। যারা মাদক সেবন ও বিক্রি করছে তারা কবিরা গুনাহ করছেন। প্রতিটি ওয়ার্ডে মাদক নির্মূল কমিটি করার নির্দেশ দিয়েছি।

৯ নম্বর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. জহুরুল আলম জসিমের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম আলমগীর। উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর আবিদা আজাদ ও পাহাড়তলী থানার ওসি আলমগীর হোসেন প্রমুখ।

মতামত