টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নিরাপত্তায় ১৭ নির্দেশনাঃ: পহেলা বৈশাখ যান চলতে পারবে না নগরীর যে সড়কগুলোতে

চট্টগ্রাম, ১১ এপ্রিল ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  পহেলা বৈশাখে নগরীর ডিসি হিল সংলগ্ন নজরুল স্কয়ার চত্বর, সিআরবি শিরীষতলা ও পতেঙ্গা সী-বিচে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়া দর্শনার্থীদের সুষ্ঠু চলাচল ও নিরাপত্তার স্বার্থে বিভিন্ন সড়কে ওদিন সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া চট্টগ্রামে পহেলা বৈশাখ উদযাপনের জন্য নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। এ লক্ষ্যে সিএমপি’র পক্ষ থেকে ১৭টি নিরাপত্তা নির্দেশনাও ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে সিএমপি সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে পহেলা বৈশাখের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত জানান সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার।
ডিসি হিল কেন্দ্রিক: নন্দনকান (পুলিশ প্লাজা) মোড়, চেরাগি পাহাড় মোড়, এনায়েতবাজার মোড় এবং লাভ-লেইন মোড় (স্মরনিকা ক্লাব) হতে ডিসি হিল অভিমুখে কোনো যানবহান চলাচল করতে পারবে না।

সিআরবি শিরীষতলা কেন্দ্রিক: কাঠের বাংলো মোড় থেকে আটমাসিং মোড় হতে সিআরবি শিরীষতলা অভিমুখে কোনো যানবাহন চলাচল করবে না। পাশাপাশি নেভাল মোড় হতে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়-সিআরবি মোড় এবং শিশু পার্ক গোলচত্বর মোড় হতে সিআরবি অভিমুখে যানবাহন চলাচল করতে পারবে না।

পতেঙ্গা সী-বিচ কেন্দ্রিক: বাটার ফ্লাই মোড় হতে নেভাল একাডেমির গেট হয়ে ওয়েস্ট পয়েন্ট মোড় পর্যন্ত রুটে এবং কাঠগড় মোড় এবং ওয়েস্ট পয়েন্ট মোড় হতে সী-বিচ অভিমুখে কোনো প্রকার যানবাহন চলাচল করতে পারবে না।

এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে ইকবাল বাহার ডিসি হিল সংলগ্ন নজরুল স্কয়ার চত্বর, সিআরবি শিরীষতলায় কোন দিক দিয়ে প্রবেশ করে কোন পথে বের হতে হবে তাও তুলে ধরেন।

পাশাপাশি পহেলা বৈশাখে মোট ১৭টি করণীয় ও বর্জনীয় বিষয় তুলে ধরেন পুলিশ কমিশনার

পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান নিরাপদ ও সুশৃঙ্খল করতে ১৭টি নিরাপত্তা নির্দেশনা ঘোষণা করা হয়েছে। এই নির্দেশনাসমূহ হলো-

১। বিকেল ৫টার মধ্যে উন্মুক্ত স্থানে আয়োজিত অনুষ্ঠান শেষ করতে হবে।

২। আবদ্ধস্থানে (ইনডোর) অনুষ্ঠান করার জন্য অবশ্যই সিএমপি’র অনুমতি নিতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করতে হবে।

৩। পহেলা বৈশাখের দিন মোটরসাইকেলে চালক ব্যতিত কোনো আরোহী থাকবে না। অনুষ্ঠান স্থলে কোনো যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে না। সুবিধাজনক স্থানে গাড়ি রেখে পায়ে হেঁটে অনুষ্ঠানস্থলে যোগ দিতে হবে।

৪। কোনো ধরনের ব্যাগ, পোটলা, প্যাকেট বহন করা যাবে না। সকলকে দেহ তল্লাশিতে সহায়তা করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

৫। মঙ্গল শোভাযাত্রায় শুরুতেই যারা অংশগ্রহণ করবেন, তারা শেষ পর্যন্ত থাকবেন। মাঝখানে কেউ শোভাযাত্রায় ঢুকতে পারবে না।

৬। শোভাযাত্রায় ভুবুজেলা বাজানো যাবে না। মুখোশ মুখে লাগানো যাবে না, তবে তা হাতে বহন করা যাবে।

৭। এবারের পহেলা বৈশাখ শুক্রবার হওয়ায় জুম্মার নামাজের সময় গান-বাজনা এবং মাইক বন্ধ রাখার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।

৮। শোভাযাত্রায় এবং সমাবেশস্থলে পানি বা অন্য কোনো পানীয়-এর বোতল বহন করা যাবে না। বর্ষবরণে সমবেত লোকজনের তৃষ্ণা নিবারণের জন্য স্থানগুলোতে সিএমপি কর্তৃক বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা করা হবে। পাশাপাশি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

৯। কোনো প্রকার আগ্নেয়াস্ত্র, ধারালো অস্ত্র, দাহ্য পদার্থ এবং বিস্ফোরক বা ক্ষতিকর দ্রব্য বহন করা যাবে না।

১০। ভয় বা আতঙ্ক সৃষ্টি করে এমন কোনো বিকট শব্দ করা যাবে না।

১১। কোনো ধরনের মাদক বহন বা মাদক সেবন করে মাতলামি করা যাবে না।

১২। নারীর প্রতি কোনো ধরনের অশোভন আচরণ করা যাবে না।

১৩। শোভাযাত্রায় সকলকে সু-শৃঙ্খল ও সারিবদ্ধভাবে চলার জন্য অনুরোধ করা হলো।

১৪। যত্রতত্র হকার/অস্থায়ী দোকান বসানো যাবে না। গ্যাস সিলিন্ডারসহ বেলুন বিক্রেতা এবং ফ্লাক্স নিয়ে চা বিক্রেতা অনুষ্ঠান স্থলে ঢুকতে পারবে না।

১৫। সন্দেহজনক কোনো কিছু দেখলে সঙ্গে সঙ্গে দায়িত্বরত পুলিশকে বিষয়টি জানাতে হবে।

১৬। প্রতিটি অনুষ্ঠানের আয়োজকরা তাদের নিজস্ব একটি স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করবেন। স্বেচ্ছাসেবকদের যাতে সহজে চেনা যায় সেজন্য ‘স্বেচ্ছাসেবক’ লেখা সম্বলিত ক্যাপ/বাহুবন্ধনীর ব্যবস্থা করবেন। স্বেচ্ছাসেবকদের নাম ও মোবাইল নম্বরসহ একটি তালিকা সংশ্লিষ্ট থানায় জমা দেবেন।

১৭। শিরীষতলা ও ডিসি হিল এ মাইকিং এর ব্যবস্থাসহ পুলিশ কন্ট্রোলরুম স্থাপিত হবে। যে কোনো প্রয়োজনে কন্ট্রোলরুমের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত