টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পরিবর্তনের ছোঁয়া

ইমাম খাইর
কক্সবাজার ব্যুরো

চট্টগ্রাম, ০২ এপ্রিল ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): পরিবর্তনের ছোঁয়া লেগেছে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে। হাসপাতালজুড়ে কমেছে দালালচক্রের দৌরাতœ্য। প্রধান গেইটে রোগী ও স্বজন ধরে দালালদের টানাটানি আর পড়ছেনা চোখে। অনেকটা লাপাত্তা প্রতারক ও ঠকবাজরা। হাসপাতাল আঙ্গিনায় ধূমপান সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। উন্নত করা হচ্ছে হাসপাতালের পয়ঃনিষ্কাষণ, ড্রেনেজ ব্যবস্থা।

ইতোমধ্যে দীর্ঘদিনের অবহেলিত হাসপাতাল আঙ্গিনা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। ইনডোর আওটডোর ওয়ার্ডগুলো আগের চেয়ে অনেক বেশী পরিচ্ছন্ন। কঠোরতা অবলম্বন করা হচ্ছে রোগীদের সনদ দেয়ার ক্ষেত্রে। সব মিলিয়ে জেলা সদর হাসপাতালের দূর্ণাম ঘোচাতে চেষ্টা করছেন কর্তৃপক্ষ।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, হাসাপাতাল আঙ্গিনায় দীর্ঘ দিন ধরে বসানো ঝুঁপড়ি দোকানগুলো সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। যত্রতত্র ভাসমান-ভ্রম্যমান ব্যবসায়ী আর দেখা মেলেনা। অবহেলিত হাসপাতাল মর্গকে উন্নত করা হচ্ছে। ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠা বৈদ্যুতিক সংযোগসমূহ সংস্কারের আওতায় আনার প্রক্রিয়া চলছে। কোন অভিযোগ পেলের সাথে সাথে ব্যবস্থা নিচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আর.এম.ও) ডা. মো. শাহীন আবদুর রহমান চৌধুরী জানান, পুরো হাসপাতালকে ঢেলে সাজানোর চেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে রোগীসেবা বাড়াতে বেশ কিছু পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। ‘রোস্টার’ আকারে সব নির্দেশনা নোটিশবোর্ডে টাঙিয়ে দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, হাসপাতালের ‘ওয়াশ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে’ পরিবর্তন আনা হয়েছে। ডাক্তারদের রাউন্ড, হাসপাতালের ইনডোর ও আউটডোর সবকিছু তদারকি বাড়ানো হয়েছে। সব মিলিয়ে জেলা সদর হাসপাতালের সেবা কার্যক্রম আগের চেয়ে অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে সিভিল সার্জন ডা. পুঁচনো বলেন, আমরা সাধ্যের ভিত্তিতে ‘এ্যাকশান প্ল্যান’ নিয়ে এগুচ্ছি। জরুরী বিভাগে সেবা আরো অধিকগুনো বাড়ানো হয়েছে। হাসপাতালের বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ সব কিছু ঢেলে সাজানোর কাজ চলছে। তিনি মনে করেন, সবার সহযোগিতা ও পরামর্শ পেলে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালকে দেশের ১ নং মডেল হাসপাতালে পরিণত করা সম্ভব হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত