টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বাবার ফিরে আসার অপেক্ষায় আবি

ফটিকছড়ির বিএনপি নেতা ও চেয়ারম্যান সিরাজ নিখোঁজের পাঁচ বছর

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি থেকে

চট্টগ্রাম, ০৮ মার্চ ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):: ‘আম্মু পাপ্পা কোথায় ? পাপ্পাকে বলো না চলে আসতে। সবার পাপ্পা কতকিছু কিছু নিয়ে আসে; আমার পাপ্পা নিয়ে আসে না কেন ? ’ চতুর্থ শ্রেণিতে পড়া ছোট্ট ছেলে আবি’র এমন প্রশ্নে শাড়ির আঁচলে মুখ লুুকিয়ে কান্না ছাড়া আর কোন জবাব দিতে পারেন না মা সোলতানা পারভীন। কি করে পারবেন ? নিজেই যে পাঁচ বছর ধরে পান না স্বামীর হদিস।

তার স্বামী ফটিকছড়ি উপজেলা বিএনপির কার্যনির্বাহী সদস্য ও লেলাং ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সিরাজ । যার নিখোঁজের পাঁচ বছর পূর্ণ হলো গত ৬ মার্চ।

২০১২ সালের ১ মার্চ চট্টগ্রাম নগরীর বাসা থেকে বিএনপির ১২ মার্চের ‘‘চলো চলো ঢাকা চলো’’ সমাবেশে যোগ দিতে ঢাকার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হন তিনি। ৬ মার্চ রাত ১১ টা পর্যন্ত তিনি ঢাকা থেকে মুঠোফোনে স্ত্রীর সাথে কথা বলেন। এরপর থেকে তার মুঠোফোনটি বন্ধ।

এ ঘটনায় স্ত্রী সোলতানা পারভীন চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী ও পাঁচলাইশ মডেল থানায় পৃথক দু‘টি নিখোঁজ ডায়েরি করেন। র‌্যাব-৭ এর কাছেও বার বার স্বামীর সন্ধানে ছুঁটেছিলেন। কিন্তু কোন প্রকার খোঁজ মেলেনি স্বামীর। স্বামীর খোঁজে ছুঁটতে ছুঁটতে স্ত্রী সোলতানা পারভীনও এখন অসহায়।

তিনি এ প্রতিনিধিকে কান্নাভরা কণ্ঠে বলেন, ‘জানিনা তিনি বেঁচে আছেন কি নেই, আমি অন্তত তার সঠিক তথ্যটা জানলে মনকে বুঝাতে পারতাম। আমি দুই সন্তান নিয়ে অথৈই সাগরে ভাসছি। আমার শশুর বাড়ির লোকজন আমাদের কোন খবর রাখেন না। তার ভাইরা আমার স্বামীর সম্পত্তিগুলো ভোগ ব্যবহার করলেও ভাইয়ের ব্যাপারে আপসোস দেখি না।’

তার স্বামীর শোকে নিজের বাবাও হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন গত বছর। নিখোঁজ সিরাজের স্ত্রী সোলতানা আরো বলেন, বাবা বেঁচে থাকতে ভাইদের বাসায় থাকতাম। এখন নিজে ভাড়া বাসা নিয়ে থাকতে হয়। বিগত পাঁচ মাস ধরে বাসার ভাড়াটাও দিতে পারিনি। বিভিন্ন এনজিও সংস্থা থেকে নেওয়া ঋণ নিয়েও বিপাকে পড়েছি। ছেলেদের পড়ালেখা বন্ধ হওয়ার পথে। কি করব বুঝতে পারছি না।’

কলেজ পড়ুয়া তার বড় ছেলে আনোয়ারুল আজিম অনন (১৭) বলে,‘ আব্বু ফিরে আসবেন সে আশা নিয়ে প্রতিটা দিন অতিবাহিত করি। কিন্তু দিন যায়, বছর আসে, আব্বু যে আর ফিলে আসে না

মতামত