টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নাজিরহাটে বদরুল স্ট্যাইলে জাবেদকে কুপিয়েছিল আরফাজ !

রাজধানীর এ্যাপলো হাসপাতালে সংকটাপন্ন অবস্থায় জাবেদ

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি থেকে

চট্টগ্রাম, ০৭ মার্চ ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): দেশজুড়ে আলোচিত সিলেটে কলেজ ছাত্রী খাদিজার উপর বদরুলের কুপানোর একই স্ট্যাইলে নাজিরহাটে জাবেদকেও কুপিয়েছিল আরফাজ। এমন মন্তব্য ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের। ফটিকছড়ি উপজেলার নাজিরহাট পৌরসভাধীন দৌলতপুর এবিসি স্কুল মাঠে ক্রিকেটে খেলায় বাকবিতান্ডার জের ধরে সোমবার রাতে আটটার দিকে নাজিরহাট কলেজ রোডের কালাপুল নামক স্থানে আরফাজ তার সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে প্রকাশ্যে রাম দা দিয়ে কুপিয়েছে জাবেদ ও তার বন্ধু রায়হানকে। রায়হানের অবস্থা কিছুটা উন্নতি হলেও জাবেদের অবস্থা গুরুতর। চমেক হাসপাতাল থেকে রাতেই তাকে রাজধানীর এ্যাপলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

হাসপাতাল থেকে এমদাদ নামক তার এক বন্ধু জানিয়েছেন, জাবেদের অবস্থা সংকটাপন্ন। সিসিইউতে তাকে রাখা হয়েছে। তার মাথায় ও শরীরে বিভিন্ন অংশে জখমে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে।

ওসমান গণি নামক ঘটনার এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, ‘জাবেদ তার দুই বন্ধুকে নিয়ে মোটরসাইকেলে চড়ার আগ মুহূর্তে পেছন থেকে রাম দা দিয়ে তাকে কুপাতে থাকে আরফাজ। তাকে উদ্ধার করতে তার বন্ধু রায়হান এগিয়ে আসলে তাকেও কুপায় সে। জাবেদ নিজেকে রক্ষা করতে আরফাজের কোমরে ধরে অনেকক্ষণ টানাহেঁচড়া করেন। কিন্তু তারপরও তার কুপাকুপি থেকে রক্ষা পায়নি। আরফাজের হাতে ধারালো রাম দা থাকায় উপস্থিত অনেকে এগিয়ে যেতে চাইলেও প্রাণ ভয়ে প্রথমে সম্ভব হয়নি। কিন্তু হঠাৎ সে ক্লান্ত হয়ে নিচে বসে পড়লে চারপাশ থেকে লোকজন থাকে আটকে ফেলে। তার সাথে থাকা কয়েকজন আরো দু‘টি রাম দা ফেলে পালিয়ে গেলেও হাতে ক্রিকেট স্ট্যাম্পসহ জনতার হাতে আটক করা হয় এনামকেও। তারপর শুরু হয় গণপিটুনি।’

খবর পেয়ে হাটহাজারী থানা পুলিশ এসে তাদেরকে নাজিরহাটস্থ ফটিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চমেক হাসপাতালে নিয়ে যান। আহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা চেষ্টা মামলার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এদিকে খবর নিয়ে জানা যায়, নাজিরহাট পৌরসভাধীন কুম্ভারপাড়া এলাকার দায়েম চৌধুরীর বাড়ির শাহাজানের পুত্র হামলাকারী আরফাজ (২৩) প্রবাস জীবন ত্যাগ করে দেশে এসে ক্ষমতাসীন দলের দলের রাজনৈতিক কর্মকান্ডে সক্রিয় থাকতে দেখা যায়। তার সাথে আটক হওয়া একই গ্রামের মিয়া চৌধুরী বাড়ির এনামও এলাকায় ক্ষমতাসীন দলের নেতা দাবী করে এলাকায় দাপুটে চলাফেরা করতেন।

অপরদিকে, ঘটনায় আহত নাজিরহাট পৌরসভাধীন বাবুনগর আজম ক্লাব এলাকার মো. হোসেনের পুত্র জাবেদ চট্টগ্রামের একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখার পাশাপাশি ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের কর্মকান্ডে যুক্ত থাকতে দেখা যায়। তবে, তারা উভয়ে ভিন্ন ভিন্ন নেতার অনুসারী বলেও জানা যায়।

এ দিকে ক্রিকেট খেলার তুচ্ছ একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে এমন নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ এলাকায় সমালোচনার ঝড় বয়ছে।

মতামত