টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ০৪ মার্চ ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):  গ্রামীণ ব্যাংকের ক্ষুদ্রঋণে দারিদ্রতা কমেছে দাবি করে ড. ইউনূসের প্রশংসা করায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কড়া সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (০৪ মার্চ) রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটে মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে এ সমালোচনা করেন তিনি।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করে বলেন, ‘আমাদের অর্থমন্ত্রী বলেছেন ক্ষুদ্রঋনের জন্য নাকি দারিদ্রতা কমেছে। যদি এ কারণেই দারিদ্রতা কমতো তাহলে তা ৬০ ভাগে কেন ছিল? আর এখনই বা কেন তা ২২ ভাগে নেমে এসেছে?’

প্রধানমন্ত্রী নিজেই প্রশ্নগুলোর জবাব দিয়ে অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আপনি যদি হিসাব নেন, তাহলে এর কারণ দেখতে পারবেন। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর গৃহীত নানা পদক্ষেপের কারণে দরিদ্রতা ২২ ভাগে নেমে এসেছে। যেখানে আপনিও কমর্সূচি নিয়েছেন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফুননেসা মোশাররফ।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ক্ষুদ্রঋণে দরিদ্রতা বিমোচন হয় না, লালন-পালন হয়। আর যারা ব্যবসা করে তারা সম্পদশালী হয়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের মা বোনরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে পরিশ্রম করে। আর লাভ নিয়ে যায় ক্ষুদ্র্রঋণের ব্যবসায়ীরা। যারা ক্ষুদ্রঋণের ব্যবসা করে তারাও চায় না দরিদ্রতা থেকে সাধারণ মানুষ উঠে আসুক। তা করলে তাদের ব্যবসা থাকবে না। দুঃখ লাগে অর্থমন্ত্রী এমন একজনের প্রশংসা করলেন যার কারণে পদ্মা সেতুর কাজই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। আমেরিকা থেকে আমাকে বারবার হুমকি দেওয়া হয়েছে।’

এখন কানাডার আদালতে প্রমাণিত হয়েছে পদ্মা সেতুতে কোনও দুর্নীতি হয়নি। অর্থমন্ত্রীকে বলি দরিদ্রতা বিমোচন হয়েছে আওয়ামী লীগের গৃহীত পদক্ষেপের কারণে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে সামগ্রিক নিরাপত্তা কাজ যখন শুরু করলো তখনই দারিদ্র্যের হার কমেছে। ৫ কোটি মানুষ আজ নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্তে উঠে এসেছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের মানুষ পুরস্কৃত হয় আর বিএনপি ক্ষমতায় এলে তারা তিরষ্কৃত হয় বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত