টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সকালে প্রধানমন্ত্রী, বিকেলে খালেদার সঙ্গে ব্রিটিশ মন্ত্রীর রুদ্ধদ্বার বৈঠক আজ

কাল আসছেন মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ০৪ মার্চ ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতের পর বিকেলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসছেন ঢাকা সফররত এশিয়া ও প্যাসিফিক বিষয়ক বৃটিশমন্ত্রী অলক শর্মা।

এর আগে তিনদিনের সফরে বৃহস্পতিবার ঢাকায় আসা এই ব্রিটিশ মন্ত্রী শুক্রবার সন্ধ্যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে বৈঠক করেন। এছাড়াও দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগে যুক্ত ব্রিটিশ ও বাংলাদেশি বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে এবং রোহিঙ্গা শরনার্থীদের সমর্থক জাতিসংঘ ও অপরাপর সংস্থার সঙ্গে বৈঠক করেন।

অলোক শর্মার সফরের পর রবিবার দু’ দিনের ঢাকা সফরে আসছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইলিয়াম টড।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে তার সঙ্গে সকালে বৈঠক করবেন ব্রিটিশ মন্ত্রী অলক শর্মা। এসময় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। এরপর বিকেল সাড়ে ৪টায় গুলশানে রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাথে বৈঠক করবেন তিনি। এসময় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের কূটনৈতিক উইয়ংয়ের নেতারা উপস্থিত থাকবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও বৈঠক করার কথা রয়েছে অলক শর্মার। ব্রিটিশ হাইকমিশন আগেই জানিয়েছে, অলোক শর্মার এই সফরের এজেন্ডায় সন্ত্রাস দমনে বাংলাদেশকে সহযোগিতা, শিক্ষা, বাণিজ্যসহ দ্বিপক্ষীয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সকল বিষয়ই অর্ন্তভুক্ত রয়েছে।

ইইউ থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে-এর মন্ত্রীসভার কোনো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীর এটা প্রথম বাংলাদেশ সফর। যদিও আন্তর্জাতিক সহায়তামন্ত্রী এর আগে বাংলাদেশ সফর করেছেন। কিন্তু ইইউ থেকে বেরিয়ে গেলে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের রুপরেখা প্রণয়নে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দফতরের মন্ত্রীদের ভূমিকা থাকে বেশি।

এরআগে শুক্রবার রাতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে অলোক শর্মার বৈঠকে চলতি মাসেই ঢাকায় বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে কৌশলগত সংলাপ অনুষ্ঠানের বিষয়ে একমত হন। বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সার্বিক বিষয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে শেষে ব্রিটিশমন্ত্রীকে নৈশভোজে আপ্যায়ন করেন মাহমুদ আলী।

এদিকে ব্রিটিশমন্ত্রী অলোক শর্মা জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সঙ্গে কাজ করবে যুক্তরাজ্য।

বৈঠকের ব্যাপারে টুইটারে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় অলোক শর্মা বলেন, ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলীর সঙ্গে খুবই ফলপ্রসু, উষ্ণ বৈঠক হয়েছে। বিস্তৃত ক্ষেত্র নিয়ে আলোচনা করেছি। সার্বিক দ্বিপক্ষীয় ইস্যু এবং আমাদের শক্তিশালী সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করেছি’।

এদিকে বৈঠকের পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব এবং যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র ও কমনওয়েলথ দপ্তরের স্থায়ী সচিবের মধ্যে চলতি মার্চের শেষ দিকে ঢাকায় কৌশলগত সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে। আসন্ন এই কৌশলগত সংলাপ বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে সম্পর্ক আরো জোরদার ও বিস্তৃত করতে এবং এই সম্পর্ককে আরও উচ্চতর ধাপে উন্নীত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, দুই দেশের মধ্যে যে আন্তরিক সম্পর্ক রয়েছে তাতে উভয়মন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেন। তারা পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। বিশেষ করে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি অধিক গুরুত্ব দেয়া হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী ব্রেক্সিট কার্যকর হওয়ার পরও বাংলাদেশী পণ্যের রফতানিতে শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা দেয়া বহাল রাখার জন্যে ব্রিটিশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। অলোক শর্মা টুইটারে লিখেছেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ ও বার্মার (মিয়ানমার) সঙ্গে কাজ করতে যুক্তরাজ্য বদ্ধপরিকর’।

তিনি পৃথক এক টুইটে লিখেন, ‘বাংলাদেশ ১৬ কোটি মানুষের বাজার। আমি ব্রিটিশ ও বাংলাদেশী কোম্পানিগুলোকে যুক্তরাজ্যের এ ব্যাপারে অঙ্গীকারের কথা গুরুত্বের সঙ্গে উল্লেখ করেছি।’

অলোক শর্মার এই সফরে বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি বিশেষ করে সন্ত্রাস দমনে সহযোগিতা এবং বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতিও যথেষ্ঠ গুরুত্ব পাচ্ছে বলে জানা গেছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত