টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস পালনের পরিকল্পনা, সংসদে প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  ২৫ মার্চকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গণহত্যা দিবস হিসেবে পালনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি আদায়ে সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে। বুধবার সংসদে এ কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, খালেদা জিয়া মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ইতিহাস বিকৃতি করার সুযোগ করে দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তরের জন্য নির্ধারিত থাকলেও তা সংসদ অধিবেশনে টেবিলে উপস্থাপন করা হয়। পরে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করে পাকিস্তানী লেখক জুনায়েদ আহমেদের লেখা বই ‘ক্রিয়েশন অব বাংলাদেশ মিক্স এক্সপ্লডেড’ নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত করেন বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। যে বইতে স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশে সংঘটিত গণহত্যা মুক্তিযোদ্ধাদের দ্বারা সংঘটিত বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী সেই সময়ে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বর্বরোচিত গণহত্যার স্মৃতিচারণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই বই লিখে পাকিস্তানের কৃতকর্ম মুক্তিযোদ্ধাদের ওপর চাপিয়ে নিজেদের দোষ ঢাকার চেষ্টা করছে। যার জন্য এদেশীয় অনেকেই দায়ী বলেও মনে করেন প্রধানমন্ত্রী।তিনি সংসদে বলেছেন, ‘২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস, এতে কোনো সন্দেহ নাই। দেশবাসীকে আজকে সোচ্চার হতে হবে। নতুন প্রজন্মকে জানা উচিৎ আমাদের ইতিহাস।’

‘আমাদের বাংলাদেশের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ, গণহত্যা, ৩০ লাখ শহীদ সব কিছুর বিরুদ্ধে বিভিন্নভাবে মিথ্য তথ্য উত্থাপন করে এই বইটি ওদের আইএসআই এর ডিরেক্টর জেনারেল আমাদের হাইকমিশনে পাঠিয়েছে।’-বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি এর নিন্দা জানানোর জন্য দাঁড়িয়েছি। ৩০ লক্ষ লোক শহীদ। সমস্ত ঘটনাকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে।’

প্রধানমন্ত্রী তার আলোচনায় একই সঙ্গে এই মাসে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সময়কার প্রেক্ষাপট ও আন্দোলনে শহীদদের স্মরণ করেন।

মতামত