টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সময় বয়ে যায় মেট্টোপ্রভাতির অপেক্ষায়

ইব্রাহিম খলিল
প্রধান প্রতিবেদক, সিটিজি টাইমস ডটকম

চট্টগ্রাম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): চট্টগ্রাম নগরীর বহদ্দারহাট মোড়ে কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করার পর এক ঘণ্টা ধরে মেট্রো প্রভাতী বাসের অপেক্ষায় বসে আছেন নজরুল ইসলাম। ইপিজেডের স্পোর্টস কারখানায় চাকরি করেন তিনি। কারখানার অফিস সময় বয়ে যাওয়ায় চিন্তিত তিনি।

নজরুল ইসলাম রবিবার সকাল ১০টায় বহদ্দারহাটে বসে আক্ষেপ করে বলেন, মেট্টো প্রভাতী বাসটির সার্ভিস খারাপ না, ভাড়া বেশি হলেও দাড়িয়ে যেতে হয় না। কিন্তু বাসটি আসতেই যদি অন্য বাসের চেয়ে সময় বেশি লাগে তাহলে তো হয় না।

একইভাবে আগ্রাবাদ বনফুলে চাকরি করেন ফাতেমা বেগম। তিনিও অনেকক্ষণ ধরে বহদ্দারহাটে বসে আছেন মেট্টো প্রভাতীর আশায়। আছেন আরও কয়েকজন। কিন্তু বাসটির দেখা না পেয়ে আক্ষেপ ঝারতে শুরু করেন সবাই।

যাত্রীদের অভিযোগ, মেট্রো প্রভাতী স্পেশাল কাউন্টার সার্ভিস। যেখানে সিটের বাইরে যাত্রী নেওয়া হয় না। নির্দিষ্ট সময়ে যাতায়াত করার কথা বাসটির। কিন্তু এখনো পর্যন্ত সব ঠিক থাকলেও কাউন্টারে গাড়ি দেরিতে আসার কারণে আগ্রহ থাকা সত্তে¡ও অনেকে এ বাসে যাতায়াত করতে পারছেন না। টিকিট সংগ্রহ করেও সময়মতো বাস না আসার কারণে অনেক যাত্রী টিকিট ফেরত দিয়েছেন।

এ বাস সার্ভিসে নিয়মিত যাতায়াত করেন ব্যবসায়ী আলমগীর। তিনি বলেন, কাউন্টারে এ বাসটি বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকে না। আবার আসন ক্ষমতার বাইরে যাত্রী উঠাচ্ছে না। সব মিলিয়ে বাসের সেবা ভালো। কিন্তু এ বাসের কাউন্টারগুলো সহজে চোখে পড়ে না। বিশেষ করে বহদ্দারহাটে কাউন্টারটি একেবারে চোখে পড়ে না।

বহদ্দারহাট কাউন্টার সুত্র জানায়, বাসে যাত্রী কম। সারাদিনে গড়ে ১৮০-২০০টি টিকিট বিক্রি হচ্ছে। যানজট ও প্রচার না থাকার কারণে এ বাসের যাত্রীর সংখ্যা বাড়ছে না। একইভাবে মুরাদপুর কাউন্টারে ২০-২২টি এবং আগ্রাবাদ কাউন্টারে গড়ে ১০০টির মত টিকিট বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে কাটগড়ের পরে আর কোন কাউন্টার না থাকায় সে দিকে বাস যাচ্ছে না বলেও এক যাত্রী জানান। এছাড়া বারেক বিল্ডিং মোড়েও একটা কাউন্টার থাকা প্রয়োজন বলে যাত্রীরা মনে করেন।

টিকিট বিক্রেতারা জানান, যে গাড়িটি আসছে তাতে সিট খালি আছে কিনা? টিকিট বিক্রি করবো কিনা? এ নিয়ে আমরা দ্বিধায় থাকি। অনেকে ১০ মিনিটের মতো অপেক্ষা করে চলে যান। তাই বাস আসলে তারপর টিকিট বিক্রি করি।

গত ১৫ জুলাই নগরীর টাইগার পাস মোড়ে এক আড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মেট্রো প্রভাতী স্পেশাল কাউন্টার সার্ভিস যাত্রা শুরু করে। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের মালিকাধীন মেট্রো প্রভাতী শুক্রবার ছাড়া সী-বিচ হতে কাপ্তাই রাস্তার মোড় পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত যাত্রী পরিবহন করছে।

এ বাসে যাতায়াতে নির্ধারিত কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে হয় যাত্রীদের। সী-বিচ হতে কাপ্তাই রাস্তার মাথা পর্যন্ত ভাড়া ৪৫ টাকা এবং উঠানামা বা ন্যূনতম ভাড়া ১০ টাকা। বাসগুলোতে সিট আছে ৪২ জনের।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব বেলায়েত হোসেন বেলাল জানান, বর্তমানে ২১টি মেট্রো প্রভাতী বাস চলাচল করছে। কাউন্টার রয়েছে ২০টি। কাউন্টারগুলো হচ্ছে কাপ্তাই রাস্তার মাথা, পুরাতন চান্দগাঁও থানা, বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, দুই নম্বর গেট, জিইসি মোড়, লালখান বাজার, দেওয়ানহাট ও আগ্রাবাদ। অন্যদিকে রয়েছে কাটগড়, হাসপাতাল গেট, ইপিজেড, কাস্টমস, আগ্রাবাদ, ওয়াসা, জিইসি মোড়, দুই নম্বর গেট ও মুরাদপুর।

যাত্রীদের সাড়া কেমন জানতে চাইলে তিনি বলেন, যাত্রীদের সাড়া পাচ্ছি না। যাত্রীর সংখ্যা কম। অনেক যাত্রী এক জায়গার টিকিট নিয়ে অন্য জায়গায় চলে যান। এ ব্যাপারে যাত্রীদের সহযোগিতা কামনা করছি আমরা।

প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গাড়ি স্বল্পতার কারণে বর্তমানে কাউন্টারে আসতে সময় লাগছে। এ সপ্তাহে আরো ৬-৭টি গাড়ি যোগ হচ্ছে। এরপর থেকে আশা করি যাত্রীরা ৫ মিনিট পরপর বাস পাবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত