টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে যুবদলের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৩

চট্টগ্রাম, ২৭ জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): বিএনপি নেতা লায়ন আসলাম চৌধুরীর মুক্তির দাবিতে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সভায় যুবদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ি ও হাতাহাতির ঘটনায় মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর সহ অন্তত ৩জন আহত হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) বিকালে বিএনপি দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবন চত্বরে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিকাল পৌনে ৫টার দিকে এ মারামারির ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে সভায় চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। পরে নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, সমাবেশ চলাকালে নগর যুবদল নেতা মোশাররফ হোসেন দিপ্তীর নেতৃত্বে একটি মিছিল আসে। এ সময় দিপ্তী মঞ্চে গেলে পাহাড়তলী বিএনপির নেতা পিচ্ছি হান্নানের নেতৃত্বে একদল দিপ্তীর পক্ষে শ্লোগান দিতে থাকে। পরে তারা মঞ্চের সামনে গেলে সামনে বসা নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দেন। এক পর্যায়ে আবুল হাসেম বক্কর শ্লোগান বন্ধ করতে বললেও তারা শ্লোগান দিতেই থাকে। এ নিয়ে মঞ্চের সামনে বক্কর সমর্থকদের সাথে হাতাহাতি শুরু হয়।

এতে দু’পক্ষের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ি শুরু হয়। পরে নেতারা গিয়ে তাদের পিছনে সরিয়ে দিলেও মারামারি এবং ভাঙচুর চলতে থাকে। এ অবস্থায় বক্করের ছেলেরা মোশাররফ দিপ্তীকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেয়ার জন্য চিৎকার করে তার দিকে তেড়ে গেলে বক্কর তাদের থামিয়ে দেয়।

মারামারির এক পর্যায়ে আবুল হাশেম বক্কর মাথায় আঘাত পান। তবে আহত হওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বক্কর  বলেন, নেতাকর্মীরা শ্লোগান এবং মিছিল নিয়ে সামনে যেতে চাইলে বাধা পেয়ে কিছুটা বিশৃঙ্খলা করেছে। এ সময় নেতারা তাদের থামিয়ে দেয়।

মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন দিপ্তী বলেন, আমার ছেলেদের সাথে বাকবিতণ্ডা হবে কেন। এটা উত্তর জেলার মিটিং ছিল। এ অভিযোগ ঠিক নয় জানিয়ে তিনি বলেন, উত্তর জেলার নেতাকর্মীদের মধ্যে সমস্যা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কোতেয়ালী থানার ওসি জসিম উদ্দিন  বলেন, বিএনপির সমাবেশে নিজেদের মধ্যে চেয়ার ভাঙচুর হয়েছে শুনেছি। সমাবেশ উপলক্ষে পুলিশ মোতায়েন ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, পুলিশ ছিল গেইটের বাইরে। ভিতরে কি হয়েছে তা পুলিশ জানে না।

মতামত