টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে কাল থেকে শুরু হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের কাজ

চট্টগ্রাম, ২০ জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস):: প্রায় দুই বছর পর কাল শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে চট্টগ্রামের ১৪টি উপজেলা এবং মহানগর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের কাজ। এই যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়াকে সামনে রেখে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের সম্পর্কে তথ্য চেয়েছে সরকার।  তবে মুক্তিবার্তা (লাল বই হিসেবে পরিচিত) ও ভারতীয় তালিকায় অন্তর্ভুক্ত মুক্তিযোদ্ধারা এই যাচাই-বাছাই আওতায় পড়বেন না।

অনলাইনে আবেদনকারী এবং গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধারা এই প্রক্রিয়ার মধ্যে পড়বেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্যদের কার্যক্রম নিয়ে সভা করেন জেলা প্রশাসক মো. সামসুল আরেফিন। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের দুই সাংসদসহ যাচাই-বাছাই কমিটির শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা অংশ নেন। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সূত্র জানায়, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় চট্টগ্রামের ১৪টি উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটি গঠন করে দেয়। কিন্তু চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধারা যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতির দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট উপজেলার বাসিন্দাদের দেওয়ার প্রস্তাব করে। এতে নিজ উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের শনাক্ত এবং যাচাইপ্রক্রিয়া সহজ হবে বলে তাঁরা মনে করেন। তাই গতকাল সভাপতি হিসেবে ১১ জনের নাম প্রস্তাব করা হয়।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সূত্র আরও জানায়, তিনজনকে দুটি করে ছয়টি উপজেলার দায়িত্ব দিতে প্রস্তাব করা হয়েছে। গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন মিরসরাই ও লোহাগাড়া, সাংসদ মইন উদ্দীন খান বাদল বোয়ালখালী, নজরুল ইসলাম চৌধুরী চন্দনাইশ ও সাতকানিয়া এবং এস এম মুর্তজা হোসেনকে আনোয়ারা ও বাঁশখালীর দায়িত্ব দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়। বাকি সাত উপজেলায় সাতজন মুক্তিযোদ্ধাকে উপজেলাভিত্তিক সভাপতির দায়িত্ব পালনের প্রস্তাব করা হয়।

চট্টগ্রাম জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন  বলেন,  শনিবার সন্দ্বীপে যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু হবে। সর্বশেষ যাচাই-বাছাই হবে আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি রাঙ্গুনিয়ায়। তিনি বলেন, বিভিন্ন সময় ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে আর কোনো বিতর্ক হোক তা কেউ চায় না।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত