টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

প্রাণের উৎসবে মেতেছে শতবর্ষী বটতলায়

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি থেকে

চট্টগ্রাম, ১৪ জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  চারদিকে আনন্দ উচ্ছ¡াস। একদিকে চলছে স্কুলবেলার শৈশবমাখা দিনগুলো নিয়ে স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠান; অপরদিকে বহুদিনের পুরনো বন্ধুকে কাছে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়ে চলছে হৈ-হুলে­াড। দীর্ঘদিনের বন্ধুৃকে দেখে হৃদয়ের সবটুকু নির্যাস ভালোবাসা দিয়ে জড়িয়ে ধরছে একে-অপরকে। সবার গায়ে একই রকমের টি-শার্ট। ঢাক আর ঢোলের তালে তালে নেচে বেড়াচ্ছে এ প্রজন্মের শিক্ষার্থীরা। স্মৃতিময় দিনটাকে স্মরণ করে রাখতে সেলফি নিতে ব্যস্ত অনেকে। বয়স ভুলে স্মৃতির খোঁজে সবাই যেন এক কাতারে। এ যেন স্মৃতির বিদ্যাপীঠে আনন্দের বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ¡াস। প্রাণের উৎসবে মেতেছে শতবর্ষী বটতলায়।

ফটিকছড়ি উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ রোসাংগিরী উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব ও পূনর্মিলনীতে এ চিত্র দেখা মেলে। তিন দিন ব্যাপি এ মিলন মেলার সমাপ্তি ঘটে আজ শনিবার।

বিদ্যালয়টির ২০০৩ ব্যাচের ছাত্র ফোরকান মজুমদার বলেন, ‘এখন যোগাযোগের অনেক নতুন পদ্ধতি রয়েছে। তবে কাছে না এলে একটা অসম্পূর্ণতা থেকে যায়। এই রজত জয়ন্তী ও প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পুনর্মিলনী সবার মিলিত হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে। আমি এ ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজকদের সাধুবাদ জানাই।’


১৯৯৯ ব্যাচের ছাত্র মঞ্জু আহমেদ বলেন, ‘এখানে এসে মনে হচ্ছেনা আমাদের বয়স এখনো বেড়েছে। ছাত্রজীবনের সেই পুরনো দিনগুলো যেন নতুন করে ফিরে পেয়েছি।’

১৯৯৮ সালের শিক্ষার্থী বেলাল উদ্দিন আকাশ বলেন, ‘ স্মৃতিচারণ করতে প্রাণের বিদ্যাপীঠে এসেছি। সব ভুলে অতীতকে কাছে নিয়ে আসতে মন চাইছে। এ তিনদিনে ফিরে গেছি শৈশবের সুনালী দিনগুলোতে।’

শতবর্ষ উদযাপন পরিষদের কার্যকরী সভাপতি ও রোসাংগীরি ইউ.পি চেয়ারম্যান শোয়েব আল সালেহীন বলেন, ‘অনুষ্টান সফল করতে স্ব-স্ব স্তর থেকে নানান জন নানাভাবে কাজ করেছেন। সবাইকে উদযাপন পরিষদের পক্ষ আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

প্রাক্তন ছাত্র-ছত্রী পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ মৃদুল কৃষ্ণ মুহুরীর সভাপতিত্বে আজ আলোচনা সভা ও স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. অনুপম সেন বলেন, একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একটি বাতি ঘরের মত। এতে যত আলো জালাবেন ততই প্রজ্জ্বলন দ্রুত ছঁড়িয়ে পড়বে। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জ্ঞানের আলো ছড়াচ্ছে। সমাজের বিভিন্ন স্তরে আলো ছড়িয়ে দিয়ে প্রমান করেছে প্রতিষ্ঠানটি এতদ্বাঞ্চলে অতুলনীয় বাতিঘর।’

সন্ধ্যায় বেতার ও টেলিভিশন শিল্পীদের পরিবেশনায় পরিবেশিত হয় মন মাতানো মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত