টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

পড়ার উপযোগী করে ব্যবস্থাপত্র লিখুন: চিকিৎসকদের হাইকোর্ট

চট্টগ্রাম, ০৯  জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস): চিকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্র (প্রেসক্রিপশন) পড়ার উপযোগী করে লেখার জন্য আগামী ৩০ দিনের মধ্যে সার্কুলার জারির জন্য নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। পড়ার উপযোগী অক্ষর অথবা বড় হাতের অক্ষর অথবা ছাপা অক্ষর- এই তিনটির যে কোনো একটি পদ্ধতিতে প্রেসক্রিপশন লিখতে কেন সরকারকে কেন নির্দেশনা দেওয়া হবে না এবং ওষুধের ব্র্যান্ড নাম না লিখে জেনারিক নাম কেন কেন লেখা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুলও জারি করা হয়েছে।

গত ১৭ ডিসেম্বর ‘দুর্বোধ্য ব্যবস্থাপত্র: ভুল ওষুধ গ্রহণের ঝুঁকিতে রোগীরা’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয় একটি গণমাধ্যমে। এই প্রতিবেদন যুক্ত করে গত ২ জানুয়ারি হাইকোর্টে একটি রিট করে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ। সেই আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের বেঞ্চ সোমবার এই আদেশ দেন।

স্বাস্থ্য সচিব ও বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলকে (বিএমডিসি) এ সার্কুলার জারি করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আগামী ছয় সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বিএমডিসির রেজিস্ট্রারকে এই সার্কুলার জারির বিষয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

চার সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক, বিএমডিসির রেজিস্ট্রার, বিএমএর মহাসচিবসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, চিকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্রের দুর্বোধ্যতার কারণে প্রতিনিয়তই বিপাকে পড়ছেন অনেকে। অনেক সময় ওষুধের দোকানিরাও ব্যবস্থাপত্রের লেখা পড়তে ব্যর্থ হন। এতে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েন দরিদ্র ও অশিক্ষিত রোগী ও তাদের স্বজনরা। বিভিন্ন ওষুধের দোকানে কর্মরতদের ওপর অনেকটা অন্ধভাবেই আস্থা রাখতে হয় সাধারণ মানুষকে। এতে রোগীদের ভুল ওষুধ গ্রহণের ঝুঁকি বাড়ছে ভয়াবহভাবে। লেখা পড়তে ব্যর্থ হওয়ায় ফার্মেসি থেকে প্রায়ই ভুল ওষুধ গছিয়ে দেয়া হচ্ছে।

প্রতিবেদন বলা হয়, বর্তমানে দেশে প্রায় ৩০ হাজার ওষুধের ব্র্যান্ড রয়েছে। এসব ওষুধের নাম মনে রাখা সংশ্লিষ্টদের পক্ষে অনেক কঠিন। এর সঙ্গে দুর্বোধ্য ব্যবস্থাপত্রের সংযুক্তি সঠিক চিকিৎসাকে আরো কঠিন করে তুলেছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, চিকিৎসকদের দুর্বোধ্য লেখার কারণে ভুল ওষুধ গ্রহণের মাত্রা বাড়ছে। এজন্য বড় (ক্যাপিটাল লেটার) ছাপার অক্ষরে ব্যবস্থাপত্র লেখার দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে। এতে রোগী, স্বজন ও দোকানিদের পক্ষেও ব্যবস্থাপত্র বোঝা সহজ হবে, যা চিকিৎসা বিড়ম্বনা কমাবে অনেকাংশে।

সম্প্রতি ভারতে দেশটির উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থাপত্রে বড় ছাপার অক্ষরে লেখা চালু হয়েছে।

মতামত