টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

তরিক্বতে প্রবেশ করে নিয়ম কানুন মেনে চললে দুনিয়া আখেরাতে মুক্তি মিলবে

রাউজান গহিরায় তাজেদারে মদিনা কনফারেন্সে আল্লামা তাহের শাহ (মা.জি.আ.)

এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন
রাউজান প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ০৪ জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  আওলাদে রাসুল (দ.) রাহনুমায়ে শরীয়ত তরিক্বত, গাউছে জামান আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ ছাহেব কিবলা (মা.জি.আ.) বলেছেন, দুনিয়া আখেরাতে মুক্তির জন্য রাসুলে পাক (দ.) ও আওলিয়ায়ে কেরাগনের আর্দশে নিবেদিত থেকে দীন ইসলামের খেদমত করতে হবে। তরিক্বত জীবনে প্রদার্পন করে জীবনকে ইসলামের উপর অটল রাখতে হবে। সিলসিলায়ে আলিয়া কাদেরীয়া হুজুর শাহিনশাহে বাগদাদ গাউসুল আজম দস্তগীর হযরত আব্দুল কাদের জীলানির তরিক্বত। ইহার সাথে রুহানী সর্ম্পক হুজুর পাক (দ.) এর সাথে। যারা এ তরিক্বতে প্রবেশ করে নিয়ম কানুন মেনে চলবে তাদের জন্য দুনিয়া আখেরাত উভয় জগতে মুক্তি মিলবে। ব্যতিক্রম করলে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গাউছিয়া কমিটি, জামেয়া, আঞ্জুমানের পতাকা তলে সুন্নিয়তের পথে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে সহযোগীতা করতে হবে। কারন এখান থেকে সত্যিকারের আলেম ওলামা সৃষ্টি হচ্ছে। যারা দীন ইসলাম তথা সুন্নিয়তে প্রসার প্রসারে ভুমিকা রাখছে। হুজুর কিবলা (মা.জি.আ.) নব দিক্ষির মুরীদদের উদ্যোশ্যে আরো বলেন, বাতেল ফেরকা থেকে সতর্ক থাকতে হবে। অতীত জীবনের গুনাহ ও পরের হক ধবংষকারীদেরকে স্ব স্ব ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে মাফ চেয়ে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারে ক্ষমা চাইতে হবে। এখন থেকে লোভ লালসা পরিত্যাগ করতে হবে। হক ও ন্যায়ে পথে চলে আল্লাহ ও রাসুল (সাঃ) এর সন্তুষ্ঠি অর্জন করতে হবে। সুন্নিয়াত প্রতিষ্ঠায় নিবেদিত মাদ্রাসা গুলোর প্রতি নজর রাখতে হবে।

তিনি আজ ৪ জানুয়ারী বুধবার দুপুরে রাউজান গহিরা ইউনিয়ন গাউছিয়া কমিটি আয়োজিত সুন্নি কনফারেন্সে প্রধান অতিথি হিসাবে সমবেত হাজার হাজার ভক্ত ও মুরিগণের উদ্দেশ্যে হুজুর কিবলা উপরোক্ত বক্তব্য রাখছিলেন। ইউনিয়ন গাউছিয়া কমিটির সভাপতি মাওলানা ইলিয়াছ আল কাদেরীর সভাপতিত্বে ও মাওলানা ইয়াছিন হোসাইন হায়দরী এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ফখরুদ্দিন মোহাম্মদ মোজাম্মেলের সঞ্চালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওলাদে রাসুল (দ.), আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম শাহ (মা.জি.আ.) ও আল্লামা সৈয়্যদ আহমদ শাহ (মা.জি.আ.), আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়ার সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মুহ্ম্মাদ মহসিন, ফাইনেন্স সেক্রেটারী আলহাজ্ব সিরাজুল হক, প্রফেসর কাজী শামসুর রহমান, গাউছিয়া কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, মাহবুব এলাহী সিকদার, জেলা গাউছিয়া কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মুছা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুস শুক্কুর, কামরুল আহসান চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আজিম। প্রধান আলোচক ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া আলিয়ার শায়খুল আল্লামা ওবায়দুল হক নঈমী। তাকরীর করেন আল্লামা হাফেজ রুহুল আমিন আল কাদেরী। অথিতিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ সদস্য কাজী আবদুল ওহাব, পৌর প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান, কাউন্সিলর কাজী ইকবাল হোসেন, কাউন্সিলর আলমগীর আলী, নজরুল ইসলাম চৌধুরী, চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন হিরু, জেলা গাউছিয়া কমিটির সদস্য আহসান হাবিব চৌধুরী হাসান, আজম আলী, মাওলানা ইব্রাহীম নঈমী, অধ্যক্ষ মাওলানা ইলিয়াছ নুরী, মাওলানা অলিয়র রহমান আল কাদেরী, এ.এ.মতিন, আলহাজ্ব মফিজুর রহমান, কাজী আবদুর রাউফ, আবদুল­াহ আল মামুন, ফরিদ আহমদ চৌধুরী, আহমদ সৈয়দ, কামাল উদ্দিন প্রমুখ। একই দিন আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ রাউজানের তৈয়্যবীয়া বায়তুল মামুর জামে মসজিদ ও কদলপুর কাদেরীয়া তৈয়্যবীয়া তাহেরীয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা উদ্বোধন করেন। এছাড়াও সমাবেশ শেষে শাহাজাদা আল­ামা সৈয়্যদ আহমদ শাহ (মা.জি.আ.) রাউজান দারুল ইসলাম মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন।

মতামত