টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

৫ জানুয়ারি: চট্টগ্রামে সংঘাত এড়াতে চায় আ.লীগ-বিএনপি, পুলিশ সতর্ক

চট্টগ্রাম, ০৪ জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তি ৫ জানুয়ারি বিএনপির ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে রাজনৈতিক অঙ্গনে। তবে সংঘাতে জড়াবেনা আওয়ামী লীগও বিএনপি।

দুই দলেরই দায়িত্বশীল নেতারা জানিয়েছেন, সংঘাত এড়াতে সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে। ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ হিসেবে ৫ জানুয়ারিতে চট্টগ্রামে সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। এদিকে,  ৫ জানুয়ারি বিএনপি চট্টগ্রাম মহানগরে সভা করার অনুমতি চেয়েছে পুলিশের কাছে।

আপরদিকে,  দুই প্রধান দলের একই দিন সমাবেশকে ঘিরে নিরাপত্তা জোরদার করার কথা জানিয়ে পুলিশ চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার বলেন, ‘ওই দিনকে ঘিরে পুলিশ সতর্ক অবস্থানে আছে। কোনো ধরনের সংঘাত সংঘর্ষেও চেষ্টা কঠোর হাতে দমন করা হবে।’

নির্বাচন ঠেকাতে বিএনপি-জামায়াত জোটের সহিংস আন্দোলনের মুখে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি ভোটের মাধ্যমে টানা দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। এই দিনটিকে ক্ষমতাসী দল গণতন্ত্রের বিজয় দিবস হিসেবে পালন করে। আর বিএনপি একে পালন করছে গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে।

গত দুই বছর এই দিনে বিএনপি-জামায়াত জোট রাজধানীতে কর্মসূচি রাখলেও এবার তারা কোনো কর্মসূচি রাখেনি। তবে ঢাকার বাইরে জেলায় জেলায় কালো পতাকা মিছিলের ডাক দিয়েছে। এর অংশ হিসেবে চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানসহ তিনটি স্থানের যেকোনো একটিতে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশের কাছে আবেদন করে নগর বিএনপি।

গত ৩১ ডিসেম্বর নগরীর লালদীঘি, কাজীর দেউড়ি মোড় অথবা দলীয় কার্যালয়ের সামনের নূর আহম্মদ সড়কে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের বিশেষ শাখায় আবেদন করে পুলিশ।

শেষ মুহূর্তে বিএনপিকে শর্ত সাপেক্ষে নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়া হতে পারে পারে পুলিশ প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে। গত বছরও সমাবেশের ১৮ ঘণ্টা আগে শর্ত সাপেক্ষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে দলটির নেতারা।

নগর বিএনপির সভাপতি শাহাদাত হোসেনবলেন, ‘আমরা তিনটি স্থানে অনুমতি চেয়েছিলাম। এখনো অনুমতি পাইনি। তবে কাজীর দেউড়ি মোড়েই সমাবেশ করব। যেহেতু লোকজন বেশি হবে তাই ওখানেই করব। পার্টি অফিসের সামনে নূর আহম্মদ সড়কে একটু গ্যাঞ্জাম হয়। সেজন্য ওই স্থানে এবার করব না।’ তিনি বলেন, ‘৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস। এদিন সমাবেশ যেকোনো মূল্যে করতেই হবে। এদিন যে গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছিল, তা মানুষকে জানাতেই হবে।’

চট্টগ্রামে এই দিনে মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে আওয়ামী লীগও। সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশের আয়োজন করেছে তারা।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘আমাদের কর্মসূচি সফল করতে নেতা-কর্মীদেরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত