টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কুতুবদিয়ার এলএনজি প্রকল্প: পেট্রোবাংলাকে ৫% লাভ দিতে চায় পেট্রোনেট

চট্টগ্রাম, ০১ জানুয়ারি ২০১৭ (সিটিজি টাইমস)::  কুতুবদিয়ার তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) একটি ল্যন্ডিংস্টেশন ও তরলীকৃত গ্যাসকে আবার স্বাভাবিক গ্যাসে রুপান্তরের একটি কেন্দ্র তৈরি করতে আগ্রহী ভারতের বৃহত্তম তরল প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান পেট্রোনেট। এ লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের রাষ্ট্রয়াত্ত প্রতিষ্ঠান পেট্রোবাংলার সঙ্গে একটি প্রাথমিক সমঝোতা স্মারক সই করেছে। গত ৩০ ডিসেম্বর পেট্রোবাংলার পক্ষে প্রাথমিক সমঝোতা স্মারকে সই করেন প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধতন কর্মকর্তা সৈয়দ আসফাকউজ্জামান।

ভারতের বিজনেস স্টান্ডার্ড পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কুতুবদিয়ার এই প্রকল্পটিতে পেট্রোবাংলাকে ২৬ শতাংশ অংশিদারিত্ব দেওয়ার প্রস্তাব করে পেট্রোনেট। তবে পেট্রোবাংলা কোনো রকমের বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ না করায় এখন প্রেট্রোনেট ৫ শতাংশ বা তার কাছাকাছি লভ্যাংশ দিতে চায়।

সই হওয়া সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশে গ্যাস সরবরাহের জন্য কুতুবদিয়া থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত ২৬ কিলোমিটার পাইপলাইনও নির্মাণ করে দেবে পেট্রোনেট।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে ৯৫ কোটি মার্কিন ডলারের প্রকল্পটি ২০২০ সালের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন পেট্রোনেট এর প্রধান নির্বাহী প্রভাত সিং।

প্রভাত সিং এর বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রকল্পটিতে বছরে ৭৫ লাখ টন তরলীকৃত গ্যাস সংগ্রহ এবং সেই তরল গ্যাস আবার স্বাভাবিক গ্যাসে রুপান্তর করা সম্ভব হবে।

তবে ৩০ ডিসেম্বর যে চুক্তিটি সই হয়েছে সেটি খুবই প্রাথমিক একটি স্মারক। পরে আনুষ্ঠানিক ভাবে একটি চুক্তি করা হবে বলে জানান প্রভাত সিং।

প্রেট্রোবাংলাকে অংশিদার করার প্রসঙ্গে তিনি বলেন,প্রেট্রোবাংলাকে আমরা ২৬ শতাংশ অংশিদারিত্ব দেওয়ার প্রস্তাব করেছি তবে পেট্রোবাংলা কোনো রকমের বিনিয়োগে আগ্রহী না থাকায় এখন ৫ শতাংশ বা তার কাছাকাছি লাভ দিতে হবে।

তিনি বলেন, পেট্রোবাংলাকে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছি ব্যবসায়ীক নিরাপত্তার স্বার্থে। ফান্ড গঠনের জন্য নয়।

প্রতিবেদন মতে, পেট্রোনেট কুতুবদিয়ার এলএনজি প্রকল্প থেকে কেবল ভারতের বাজারেই নয়, আগামী ২০ বছরে গ্যাসের চাহিদা দ্বিগুণ বৃদ্ধি পাওয়া বাংলাদেশের বাজারটাতেও চোখ রাখছে ।

সেই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে সাড়ে চার কোটি টন গ্যাসের চাহিদা মেটাতে পারবে বলেও বলছে পেট্রোনেট।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত