টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্বকে তাক লাগিয়েছে: ওবায়দুল

চট্টগ্রাম, ৩১ ডিসেম্বর, সিটিজি টাইমস:: বিগত বছর নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “ফেলে আসা বছরে আমাদের উন্নয়ন ও অর্জন বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। তারপরও হলি আর্টিজান ও শোলাকিয়া সাময়িকভাবে বিচলিত-ধৈর্যহারা করেছিল, কিন্তু দিশেহারা করতে পারেনি।”

শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে বিজয় দিবস উপলক্ষে যুবলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, “তারা এখন সব জায়গায় ব্যর্থ। ব্যর্থ আন্দোলনে, ব্যর্থ নির্বাচনে। সর্বশেষ প্রমাণ নারায়ণগঞ্জ। ব্যর্থ লোক শুধু নালিশ করে। বিএনপি এখন বাংলাদেশ নালিশ পার্টি।”

বিদায়ী বছর নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “আজকে নির্দ্বিধায় বলতে পারি, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের ফেলা আসা বছরের উন্নয়ন ও অর্জনের প্রাপ্তি অনেক অনেক বেশি। আজকে গর্ব করে বলছি, বুক উঁচু করে বলছি, বঙ্গবন্ধু, তুমি এ দেশ স্বাধীন করে ভুল করোনি।”

তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধু, তোমার স্বপ্নের বাংলাদেশ আজ কেবল এগিয়ে যাচ্ছে। আর তোমার নেতৃত্বে একাত্তরে যাদের পরাজিত করেছি, তারা কেবল পিছিয়ে যাচ্ছে। পাকিস্তান পিছিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।”

আন্তর্জাতিক সমীক্ষায় অন্তত ২৫ সূচকে পাকিস্তান বাংলাদেশের চেয়ে পিছিয়ে বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, “এখনো শোলাকিয়া ট্র্যাজেডির কালো ঘা থেকে, হলি আর্টিজানের রক্তাক্ত ট্র্যাজেডি থেকে বেরিয়ে আসতে পারিনি। বিজয়ের মাসের শেষ দিনে আমাদের শপথ হবে, এই দুটি ট্র্যাজেডি থেকে বেরিয়ে আসব। জনগণকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উগ্রবাদীদের প্রতিরোধ করে পরাজিত করব।”

জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় ঘুরে দাঁড়িয়েছি উল্লেখ করে তিনি বলেন, “বিপদ এখনো যায়নি। নতুন বছরের জন্য এই অসম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন করতে হবে। আমাদের বিজয়কে সুসংহত করতে হবে। সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদও আমাদের বিজয়ের পথে বাধা। এই বাধাও অতিক্রম করে আমাদের পুরোপুরি বিজয়ী হতে হবে। এটাই হবে আমাদের আজকের শিক্ষা-দীক্ষা।”

জেলা পরিষদের নির্বাচন সংবিধানবহির্ভূত নয় উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “বিএনপি মিথ্যাচার করে। মিথ্যাচারকে পুঁজি করে রাজনীতি করে। সংবিধানকে রক্তাক্ত করেন, তাঁরা এখন সংবিধানের কথা টেনে আনেন। ভূতের মুখে রাম নামের মতো।”

যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, ফারুক হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাইনুল হোসেন খান, দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী। আলোচনা সভা পরিচালনা করেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ।

মতামত