টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ফটিকছড়িতে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রের আত্মহত্যা

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি থেকে

চট্টগ্রাম, ২৯ ডিসেম্বর, সিটিজি টাইমস::বার্ষিক পরীক্ষয় পূর্বের চেয়ে ফলাফলে পিছিয়ে পড়ায় মায়ের বকুনি খেয়ে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্র গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ফটিকছড়ি উপজেলা সদরের আনন্দ কমিউনিটি সেন্টারের তৃতীয় তলায় ভাড়া বাসায় আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ছাত্রের নাম- মোহাম্মদ এনাম(১২)। সে উপজেলার নাজিরহাট পৌরসভাধীন বারৈয়ারহাট সংলগ্ন ননাই বাপের বাড়ির ট্রাক চালক মোহাম্মদ আজমের একমাত্র পুত্র সন্তান।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, এনাম উপজেলার বারৈয়ারহাট তৈয়্যবিয়া সুন্নিয়া হাফেজীয়া দাখিল মাদ্রাসার সদ্য পঞ্চম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী। আজ বৃহস্পতিবার মাদ্রাসায় প্রকাশিত বার্ষিক পরিক্ষায় পূর্বের রোল নং ৫ থেকে ১০ এ পিছিয়ে পড়ে সে । ফলাফল নিয়ে ছেলে এনাম বাসায় পৌঁছালে আগের চেয়ে ফলাফল পিছিয়ে পড়ায় মা বুলবুল আকতার তাকে বকাঝকা করেন। কিছুক্ষণ পর ঘরের এক পাশে টাঙ্গানো দোলনার রশির সাথে ছেলের ঝুলন্ত অবস্থায় ছেলেকে দেখতে পান মা বুলবুল আকতার। সেখান থেকে তাকে দ্রুত নাজিরহাটস্থ ফটিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। ততক্ষণে তার মৃত্যু ঘটে।

মা বুলবুল আকতার বিলাপ করতে করতে বলেন, ‘এবার সমাপনী পরীক্ষা, তাই ভালভাবে পড়ালেখা করতে তাকে বকুনি দিয়েছি। কিন্তু ছেলে এ পথ বেঁচে নেবে কল্পনা করতে পারিনি। একমাত্র ছেলেকে নিয়ে বড় স্বপ্ন ছিল, তাকে ভালোভাবে ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য মাদ্রাসায় পড়ালেখা করাতে দিয়েছি। ’ একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে মা বুলবুল এখন পাগল প্রায়।

এনামের বড় বোন অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া ইয়াছমিন বলে, আমরা যেন ভালো করে পড়ালেখা করি মা এজন্য আমাকেও বকাঝকা করেছিল। কিন্তু আমার আদরের ভাই এভাবে চলে যাবে ভাবতেও পারিনি।

ফটিকছড়ি থানার এস.আই ইরাফান ইদ্দিন রাজিব বলেন, ‘ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের লোকজন জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে বিনা ময়নাতদন্তের জন্য আবেদন করেছেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে লাশ দাফনের ব্যবস্থা করা হবে।’

মতামত