টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সহজ সুযোগ হাতছাড়া

চট্টগ্রাম, ২৯ ডিসেম্বর, সিটিজি টাইমস:: নিউজিল্যন্ড সিরিজের প্রথম ম্যাচে না হলেও দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিকদের বাগে পেয়েছিলেন টাইগাররা। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদেরকে হারোনোর নতুন ইতিহাস তৈরির সুযোগ হাতছাড়া হয়ে গেলো টাইগারদের। এর জন্য মিডলঅর্ডারের ব্যাটিং ব্যর্থতাই দায়ী বলে মনে করছেন ক্রিড়া বিশ্লেষকরা।

খেলার বেশির ভাগ সময়ই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ছিল বাংলাদেশের হাতে। কিন্তু জয় থেকে যখন কেবল অর্ধেক পথ বাকি তখন হঠাৎ করেই ধস নামল বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপে! নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথমবারের মতো তাদেরকে হারানোর সহজ সুযোগ মিস করল টাইগাররা। ৬৭ রানের জয়ে ১ ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ জিতে নিলো নিউজিল্যান্ড। ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হলেন নেইল ব্রুম।

নেলসনের ব্যাটিং স্বর্গে নিউজিল্যান্ডের দেওয়া ২৫২ রানের মাঝারি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩০ রানেই ওপেনার তামিম ইকবাল বিদায় নেন। ২৩ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ১৬ রানের ইনিংসটি শেষ হয় টিম সাউদির বলে ল্যাথামের হাতে ধরা পড়ে। কম রানের মধ্যে উইকেট পতন হলে এমনিতেই চাপে পড়ে যায় দল। বাংলাদেশও সেই চাপে পড়েছিল। তবে ইমরুল কায়েস এবং সাব্বির রহমানের প্রতিশ্রুতিশীল ব্যাটিংয়ে বিপদ এড়ায় বাংলাদেশ। দুজন মিলে গড়েন ৭৫ রানের জুটি। এরপর ইমরুলের সাথে ভুল বোঝাবুঝির কারণে দৃষ্টিকটুভাবে রান আউট হয়ে ফিরে যান সাব্বির রহমান (৩৮)।

সাব্বিরের অদ্ভূতুড়ে আউটের পর ইমরুল কায়েসের সঙ্গে জুটি বাঁধতে ক্রিজে আসেন মহাবিপদে যার ব্যাট জ্বলে ওঠে, সেই মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে মাত্র ১ রান করে ফার্গুসনের বলে বোল্ড হয়ে যান ঠাণ্ডা মাথার এই ক্রিকেটার। এরপরই ক্যারিয়ারের ১৩তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন ইমরুল কায়েস। কিন্তু ভাগ্যদেবী মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে তখন। মাত্র ১৩ রানের মধ্যে ফিরে যান বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান (৭), মোসাদ্দেক হোসেন (৩), ইমরুল কায়েস (৫৯) আর অভিষিক্ত তানভীর হায়দার (২)। প্রথম ম্যাচে দারুণ খেলা মোসাদ্দেক স্রেফ একটা বাজে শট খেলে উইলিয়ামসনের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন।

৩১ ডিসেম্বর শনিবার বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় এই নেলসনেই অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের তৃতীয় তথা সর্বশেষ ওয়ানডে। টাইগারদের সামনে এখন হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়ানোর চ্যালেঞ্জ। এর আগে নেলসনের মেঘলা আবহাওয়ায় সিরিজে ফেরার ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ভালোভাবেই চেপে ধরে বাংলাদেশ।

সেক্সটন ওভালে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টসে জিতে স্বাগতিকদের ব্যাট করতে পাঠায় বাংলাদেশ। কিউইদের স্কোর বোর্ডে কোনো রান যোগ না হতেই মাশরাফি বিন মুর্তজার শিকার হন মারকুটে ওপেনার মার্টিন গাপটিল (০)। দলীয় ৩৭ রানে তাসকিনের বলে সাকিবের হাতে ধরা পড়েন কেন উইলিয়ামসন (১৪)।

এরপর নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে নিউজিল্যান্ড। একসময় ১০৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে স্বাগতিকরা। টিম সাউদি (৩) এবং আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ল্যাথামকে (২২) ফেরত পাঠান সাকিব। তাসকিনের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন লুক রঞ্চি (৩৫)।

এ দিন মোসাদ্দেক হোসেন এবং অভিষিক্ত তানভীর হায়দার ছাড়া সবাই কৃপণ বোলিং করেছেন। মোসাদ্দেক ২ ওভারে ১২ রান দিয়ে ১ উইকেট তুলে নেন। এরপর অবশ্য মাশরাফি তাকে আর বল দেননি। অন্যদিকে তানভীর ৮ ওভার বল করে ৪৭ রান দেন। মাশরাফি ৩টি, সাকিব-তাসকিন ২টি করে এবং শুভাশিস রায় ১টি উইকেট নেন।

সাকিব, তাসকিন, শুভাশিসের ইকোনোমি রেট ছিল সমান, ৪.৫০। আর মাশরাফির সামান্য বেশি, ৪.৯০।
এই বোলিং তোপের মুখেও উইকেটের একপ্রান্ত কামড়ে ধরে ছিলেন কিউই দলে ফেরা নেইল ব্রুম। দলের সবার বিপরীতে ব্যাট চালিয়ে সেঞ্চুরি পূরণ করেন তিনি। ১০১ বলে ৭ বাউন্ডারি এবং ৩ ওভার বাউন্ডারিতে তিনি ৩ অংকে পৌঁছান। শেষ পর্যন্ত ১৭ বলে ১০৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। তার ইনিংসে যুক্ত হয় আরো একটি বাউন্ডারি।

মতামত