টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

প্রাণের উচ্ছ্বাসে মিলেছে নানুপুর লায়লা কবির কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি থেকে 

চট্টগ্রাম, ১৭ ডিসেম্বর  ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):  ১৯৯১ থেকে ২০১৬। পা পা করে পার করেছে পঁচিশটি বছর। এ পঁচিশেই আলো ছড়িয়েছে দেশ থেকে দেশান্তরে। যেখানে আলোর প্রজ্বলন শিখা সেখানেই হাজির হলেন অতিত চড়ানো হাজারো শিক্ষার্থী। প্রাণের উচ্ছ্বাসে মিলেছে কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

রজতজয়ন্ত্রীর এই শুভ সন্ধিক্ষণে রঙ্গিন সাজে সেজেছে ফটিকছড়ি উপজেলার নানুপুর লায়লা-কবির ডিগ্রী কলেজ। আজ শনিবার থেকে শুরু হয়েছে রজতজয়ন্তীর দু‘দিন ব্যাপি বর্ণাঢ্য উৎসব।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য মো. আনোয়ারুল আজিম আরিফ। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইরানের রাষ্ট্রদূত ড. আব্বাস বায়েজি দিহনাবী। প্রধান আলোচক ছিলেন পিএইচপি গ্র“পের চেয়ারম্যান সুফী মিজানুর রহমান, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের অধ্যক্ষ আ.ন.ম সরোয়ার আলম।


কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ফকরুল আনোয়ারের সভাপতিত্ব এবং প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন রবিন ও অধ্যাপক পংকজ দেব অপুর সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এইচ এম আবু তৈয়ব, ড. মাহমুদ হাসান, খাদিজাতুল আনোয়ার সনি, নুরুন্নবী রওশন, নানুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ ওসমান গণি, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সহসভাপতি মীর মোরশেদুল আলম, রজত জয়ন্তী উদযান পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী বখতিয়ার সাইদ ইরান, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম প্রমুখ।

উপস্থিত ছিলেন, নাজিরহাট কলেজের অধ্যক্ষ এস.এম নুরুল হুদা, বখতপুর ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম সোলাইমান, নানুপুর মহিলা মাদ্রসার প্রতিষ্ঠাতা হুসাইন আহম্মদ ফারুখী, অধ্যক্ষ মোসলেহ উদ্দিন মাদানী, যুবলীগ নেতা আকতর মিয়ার । রাষ্ট্রপতির বানী পাঠ করেন অধ্যাপক বিজন কুমার নাথ।
উদ্বোধনী বক্তব্যে সাবেক উপাচার্য আনোয়ারুল আজিম আরিফ বলেন, পল্লীর সবুজ সুন্দর নৈসর্গে এই শিক্ষা প্রতিষ্টানে জ্ঞান বিতরণ করা হয়। এখানে জ্ঞানের প্রতিযোগিতা হয়। বিগত ২৫ বছরে এখান থেকে হাজার হাজার জ্ঞানের আলো বের হয়েছে। যারা এই সমাজ, রাষ্ট্র ও সভ্যতা গড়ার কাজে প্রতিনিধিত্ব করছেন।


প্রধান আলোচক সুফী মিজানুর রহমান বলেন, শিক্ষা মানুষকে বিনয়ী করে। সমাজকে আলোকিত করে। শিক্ষা অর্জনকারীর ক্ষয় নেই। মৌলিক শিক্ষায় যারা শিক্ষিত হয় তারা সমাজকে সব সময় দিয়ে যান । যেমনটি দিয়ে গেছেন রফিকুল আনোয়ার ও তার ভাই ফরিদুল আনোয়ার এই নানুপুর লায়লা-কবির ডিগ্রী কলেজ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বিকেলে এক মনোজ্ঞ সাং®কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে বেতার-টেলিভিশনের অনেক খ্যাতনামা শিল্পী গান পরিবেশন করেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত