টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

শের আলীকে নিয়ে গর্বিত চট্টগ্রাম পুলিশ, প্রেসিডেন্ট পদকের সুপারিশ

চট্টগ্রাম, ১৪ ডিসেম্বর  ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):: কিছু বাস্তবিক ঘটনা মাঝেমধ্যে রূপকথার গল্পকেও হার মানায়।নিজেকে তখন তুচ্ছ কিছু মনে হয়।কিন্ত যে মানুষ রূপকথার মতো ঘটনা বাস্তবে জন্ম দেন, তাঁকে তো হিরো না বলে উপায় নেই। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া অন্যরকম মানবিক গল্পের হিরো পুলিশ কনস্টেবল শের আলীর গল্প শুনি। যিনি নিজে কেঁদেছেন, কাঁদিয়েছেন পুরো দেশকে।

শের আলী। বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে এখন আলোচিত নাম। দুর্ঘটনাকবলিত বাস থেকে একটি শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে শের আলীর কান্না অনেককেই অশ্রুসজল করেছে।

চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে কর্মরত শের আলী বিগত রোববার  তিনদিনের ছুটি নিয়ে  দুপুরের খানিক আগে বাড়িতে পৌঁছা মাত্রই কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রামু উপজেলার রশিদ নগর ইউনিয়নের পানিরছড়া এলাকায় বাস উল্টে যাওয়ার দুর্ঘটনার খবর শোনেন । দুর্ঘটনাস্থল থেকে বাড়ি খুব কাছে হওয়ায় তিনি কয়েকজন প্রতিবেশীকে নিয়ে উদ্ধার কাজে নেমে পড়েন। বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানোর প্রায় তিন ঘণ্টা পর বাসের ভেতরে ব্যাগ রাখার জায়গায় এক শিশুকে আটকে থাকতে দেখেন তিনি। ব্যাগ রাখার স্থানে শিশুটির মাথা থেকে চোখ পর্যন্ত আটকে ছিল তখন। সেটি ফাঁক করে মেয়েটিকে উদ্ধার করার পর শের আলী  আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। এরপর তিনি শিশুটিকে কোলে নিয়ে কাঁদতে কাঁদতে দৌড়াতে থাকেন হাসপাতালের উদ্দেশে। যে কান্নার দৃশ্য এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় মানবিকতার প্রতিচ্ছবি হয়ে ঝড় তুলছে।

তার এমন মানবিক কাজে গর্বিত এখন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ। শের আলীর মহৎ কর্মে প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদকের জন্য সুপারিশ করতে যাচ্ছেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার।

পুলিশ কমিশনার জানান, শের আলী চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের উত্তর ও দক্ষিণ বিভাগে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটে কর্মরত। তার কনস্টেবল নম্বর ২৫৪৬। আগামী জানুয়ারি মাসে পুলিশ সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক পেতে শের আলীর জন্য পুলিশ হেডকোয়ার্টারে সুপারিশপত্র প্রেরণ করা হবে। আজ বুধবার বিকেলেই এই সুপারিশ ঢাকায় প্রেরণ করা হবে বলে পুলিশ কমিশনার জানান। এ ছাড়া নগর গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকেও শের আলীকে পুরস্কৃত করা হবে।

চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার পরিতোষ ঘোষ বলেন, ‘শের আলী আমার অধীনে কর্মরত। সে ছুটিতে গিয়ে যে মানবিক ঘটনায় অংশ নিয়ে সারাদেশে পুলিশ বাহিনীর মুখ যেভাবে উজ্জল করেছেন তাতে আমরা গর্বিত। শের আলীকে বিভাগীয়ভাবে পুরস্কৃত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’ মঙ্গলবার শের আলী ছুটি শেষে কাজে যোগ দিয়েছেন বলে জানান উপ-কমিশনার।

উল্লেখ্য, গত রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের রামু উপজেলার পানিরছড়া এলাকায় শের আলীর বাড়ির কাছাকাছি এলাকায় বাস উল্টে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে নিহত হন ৪ জন। এই দুর্ঘটনায় একটি শিশু বাসের চাপায় আটকে থাকলে আর্তনাদরত কন্যা শিশুটিকে বাঁচাতে এগিয়ে যান শের আলী। প্রায় ঘন্টাব্যাপী চেষ্টার পর শিশুটিকে উদ্ধার করে দৌড়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন শের আলী। এই ছবি ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে সারাদেশে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য