টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

৬ ডিসেম্বর ও ৫ রবিউল রাত ৮টা ৪ মিনিটে…..

চট্টগ্রাম, ০৮  ডিসেম্বর  ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):  ৬ ডিসেম্বর ও পবিত্র ৫ রবিউল রাত ৮টা ৪ মিনিটে আমার প্রানপ্রিয় বাবা ডাক্তার ছিদ্দিক আহমদ (৭৫) কে হারালাম। তিনি একটা চোট্র সরকারি চাকরি করে আমাদের ৫ ভাই ও ২ বোনকে উচ্চ শিক্ষিত করেছেন। তিনি মহেশখালী হাসপাতালসহ চট্টগ্রামের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে ৩৫ বছর যাবৎ চাকরি করেছেন। বাবার জীবনে তেমন কোনো লেনদেন ছিল না। তিনি খুবই সাদা মাঠা মানুষ ছিলেন।  আমরা ৭ ভাইবোনের মধ্যে বাবার সবচেয়ে বেশি প্রিয়জন ছিলাম আমি জসিম। তিনি সব বিষয়ে আমার সাথে খোলামেলা আলোচনা করতেন। বাবাকে বিদায় দিতে গিয়ে আমি………!!! আপনারা সবাই জানেন আমি বছরখানিক যাবৎ খুবই অসুস্থ। আমার ২টি মোটা দাগে অপারেশন হয়েছে। তারপরেও মহান আল্লাহর দেয়া পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে আসছি। আমার বাবা মৃত্যুকালে রেখে গেছেন যাদের তার পরিচয় একটু তুলে ধরছি বড় ভাই ২ ছেলের জনক নজির আহমদ সিদ্দিকী এলএলবি, মেঝভাই ১ মেয়ের বাবা মাওলানা (খতীব ) আব্দুর গফুর সিদ্দিকী, ৩য় ভাই অবিবাহিত ডাক্তার নুরুল ইসলাম সিদ্দিকী, আমি বিবাহিত জসিম সিদ্দিকী পেশায় একজন শিক্ষক ও সাংবাদিক এবং ৫ম ভাই বাবার খলিজার টুকরা অধ্যায়নরত আলমগীর সিদ্দিকী বিএ অনাস এমএ। বোন ২ জনের মধ্যে বড়টা ২ ছেলের জননী, ছোটটা ২ মেয়ের মা। আমার মা হলেন মহেশখালী উপজেলার বড়মহেশখালী এলাকার মৃত. আলী রেজার ১ম কন্যা সালেহা বেগম। আপনারা সবাই মেহেরবানি করে বাবার জন্য দোয়া করবেন। আমরাও আপনাদের জন্য প্রাণভরে দোয়া করছি।ফেইজবুক সংগৃহিত: প্রকাশক ও সম্পাদক- কক্সবাজার কন্ঠ ও কক্সবাজার নিউজ এজেন্সী।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত