টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাই হানাদার মুক্ত দিবস ৮ ডিসেম্বর

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ০৭  ডিসেম্বর  ২০১৬ (সিটিজি টাইমস) কাল বৃহস্পতিবার মিরসরাই হানাদার মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের ডিসেম্বর মাসের এই দিনে মিরসরাই উপজেলা পাক হানাদার মুক্ত হয়। ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ শুনার পর থেকেই মিরসরাইয়ের সর্বস্তরের জনতা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠন শুরু করে। দিবসটি উপলক্ষ্যে কাল সকাল ১০টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের উদ্যোগে মিরসরাই উপজেলা শহীদ মিনারে র‌্যালী ও সমাবেশ করা হবে।

তৎকালীন মিরসরাই বিএলএফের ডেপুটি কমান্ডারও মিরসরাই সদর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান জাফর উদ্দিন আহাম্মদ চৌধুরী জানান, ৮ ডিসেম্বর সকাল বেলা তিনি সুফিয়া রোড এসে দেখতে পান ওয়ার্লেস স্টেশন থেকে একটি পাক বাহিনীর জিপ তীব্র গতিতে বেরিয়ে যাচ্ছে এবং কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই প্রচন্ড শব্দে কাঁপিয়ে ওয়ার্লেস স্টেশরটি ধ্বংস হয়ে যায়। শত্রুর অবস্থান নিশ্চিত হয়ে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে সকল মুক্তিযোদ্ধার কাছে খবর পাঠানো হয় যোদ্ধারা যেন সুসংগঠিত হয়ে মিরসরাই থানা সদরের দিকে অগ্রসর হন। বেলা প্রায় ১০টা নাগাদ মুক্তিযোদ্ধা জাফর উদ্দিন আহম্মদের বিএলএফ গ্রুপের মুক্তিযোদ্ধাসহ প্রায় দু’শ মুক্তিযোদ্ধা মিরসরাই সদরের পূর্ব দিক ছাড়া বাকী তিন দিক ঘিরে ফেলে। বেলা প্রায় ১১টার দিকে মুক্তিযোদ্ধারা তিন দিক থেকে সংগঠিত হয়ে শত্রুর বিরুদ্ধে এক যোগে আক্রমন শুরু করে। শুরু হয় পাক সেনা ও মুক্তিযোদ্ধাদের গুলি বিনিময়। পাক সেনাদের অবস্থান ছিল মিরসরাই হাই স্কুল, মিরসরাই থানা, মিরসরাই সি.ও. অফিস। বৃষ্টির মতো গুলি বিনিময়ের এক পর্যায়ে মনে হলো পাক সেনাদের পক্ষ থেকে কোন প্রতিরোধ আসছেনা। মুক্তিযোদ্ধারা সতর্কভাবে শত্রুর অবস্থানের দিকে গিয়ে দেখলেন পাক সেনারা পলিয়েছে। মুক্তিযোদ্ধারা থানায় প্রবেশ করে পাক সেনাদের আটটি রাইফেল উদ্ধার করে। পাক সেনারা চট্টগ্রামের দিকে পালিয়ে গেছে বলে পরে জানা যায়। চট্টগ্রামের কোন অঞ্চল তখনো মুক্তির স্বাদ পায়নি। মিরসরাই শত্রুমুক্ত হয়েছে-এ কথা বাতাসে দ্রুত ছড়িয়ে যায় মিরসরাইয়ের সর্বত্র। মুহুর্তেই চতুর্দিক থেকে জয় বাংলা ¯েøাগানে মুখরিত মিছিল আসতে থাকে। হাজারো জনতার ঢল নামে মিরসরাই হাই স্কুল মাঠে। মৌলভী শেখ আহম্মদ কবির কোরআন তেলাওয়াত করেন। পরে জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা জাফর উদ্দিন আহাম্মদ চৌধুরীসহ সবাই জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। ঘোষণা করা হয় আজ ৮ ডিসেম্বর ১৯৭১ সাল মিরসরাই ভূখন্ড পাক বাহিনীমুক্ত একটি স্বাধীন এলাকা। সে থেকে ৮ ডিসেম্বর মিরসরাইয়ে উদ্যাপিত হয়ে আসছে স্বাধীনতার শত্রুমুক্ত দিবস।

মিরসরাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার আবুল হাশিম জানান, মিরসরাই হানাদার দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে র‌্যালী বের করা হবে। র‌্যালী শেষে মিরসরাই হানাদার মুক্ত দিবস নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান হবে। আলোচনা সভায় উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরা অংশগ্রহণ করবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত