টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রোহিঙ্গা ইস্যু একটি মানবিক সংকট

চট্টগ্রাম, ০৩ ডিসেম্বর  ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):: রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর মায়ানমার সেনাদের নির্মম নির্যাতন ও মানবিক সংকটে আগামী ৪ ডিসেম্বর সংহতি সমাবেশের অনুমতি দেয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে মালয়েশিয়া।

শনিবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করেছে। সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক যোগ দিবেন বলে এতে জানানো হয়।

এর আগে, রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনীর অভিযানের বিষয়ে মালয়েশিয়াকে নাক না গলানোর আহ্বান জানায় মায়ানমার। এ আহ্বানের জবাবে মালয়েশিয়া দেশটিকে কড়া সকর্তবার্তা দিল।

মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, রাখাইনে সেনাবাহিনীর নির্যাতনে মুসলিম রোহিঙ্গারা চরম মানবিক সংকটের মধ্যে রয়েছে।

এর আগে মিয়ানমার টাইমসের খবরে বলা হয়, আগামীকাল রবিবার রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিক্ষোভ সমাবেশ করবেন নাজিব রাজাক। তবে কোথায় এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে তা এখনো জানানো হয়নি।

মালয়েশিয়ার এ অবস্থানের পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার মায়ানমারের প্রেসিডেন্ট দপ্তরের ডেপুটি জেনারেল ইউ জউ হায়ে বলেন, ‘প্রতিবেশি দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি মালয়েশিয়ার শ্রদ্ধা দেখানো উচিত।’

তিনি বলেন, ‘আসিয়ান আঞ্চলিক জোটের মূলনীতিতে একটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার অধিকার আরেকটি দেশের নেই। আমাদের এ নীতিকে অনুসরণ ও সম্মান দেখানো উচিত।’

মায়ানমারের এ বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে শনিবার মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতি দিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মানবিক সংকটের শিকার রোহিঙ্গাদের জন্য রবিবার আয়োজিত সংহতি সমাবেশে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক।

আসিয়ান আঞ্চলিক জোটের মূলনীতি বিষয়ে মায়ানমারের বক্তব্যের জবাবে মালয়েশিয়া বলছে, প্রতিবেশি ও জোটের সচেতন সদস্য হিসেবে মালয়েশিয়া মনে করে, আসিয়ানের সদস্য মায়ানমার সরকারেরও উচিত, রোহিঙ্গাদের রক্ষায় পদক্ষেপ নেয়া এবং এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঠেকানো।

মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভাষ্যে, আসিয়ানের প্রতিষ্ঠাকালীন দেশ হিসেবে এর মূলনীতি সম্পর্কে মালয়েশিয়া ভালোভাবেই সচেতন রয়েছে।

পাশাপাশি মালয়েশিয়া স্মরণ করিয়ে দেয়, তাদের দেশে অন্তত ৫৬ হাজার রোহিঙ্গা এবং প্রতিবেশি অন্যান্য দেশেও অসংখ্য রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে।

আর এটি এখন আর অভ্যন্তরীণ বিষয় নেই, অন্যতম আন্তর্জাতিক ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মনে করে মালয়েশিয়া।

দেশটির মতে, ‘এটিই বাস্তবতা যে, শুধুমাত্র রোহিঙ্গারাই মায়ানমার থেকে বিড়াড়িত ও জাতিগত হত্যার শিকার হচ্ছে।’

মালয়েশিয়া অবিলম্বে মায়ানমারকে রাখাইনে সেনাবাহিনীর রোহিঙ্গা নিধন বন্ধের আহ্বান জানায়।

একই সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের দেশগুলোকেও অবশ্যই মায়ানমারের এই কার্যক্রম বন্ধে এগিয়ে আসার আহ্বান জানায়।

বিবৃতিতে মালয়েশিয়া মায়ানমারের সরকারকেও রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান খুঁজে বের করতে বলেছে।

সূত্র: চ্যানেল নিউজ এশিয়া

মতামত