টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নারী কেলেঙ্কারিতে ফাঁসলেন সাব্বির-আল আমিন?

spচট্টগ্রাম, ৩০  নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস): এ কোথায় যাচ্ছে বিপিএল? একদিকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের গুঞ্জন মাথাচাড়া দিচ্ছে। আরেকদিকে মাঠে অখেলোয়াড়সূলভ আচরণ। একের পর এক ক্রিকেট পাড়ায় জন্ম দিচ্ছে তুমুল আলোচনা। এবার এ দু’য়ের সাথে যোগ হল মাঠের বাইরের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাও। যার চরম খেসারত দিতে হয়েছে রাজশাহী কিংসের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান এবং বরিশাল বুলসের তারকা পেসার আল আমিন হোসেনকে।

‘মাঠের বাইরে গুরুতর অসদাচরণের’ কারণে বিপিএলের পারিশ্রমিকের ৫০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে আল আমিনকে। রাজশাহী কিংসের সাব্বিরকে করা হয়েছে ৩০ শতাংশ। তার মানে আল আমিনের গুনতে হবে সাড়ে ১২ লাখ আর সাব্বিরের ১২ লাখ টাকা। এমন বড়সড় দণ্ড বাংলাদেশ ক্রিকেটের ইতিহাসে এই প্রথম।

এখানেই শেষ নয়, জাতীয় দলের ক্রিকেটার হিসেবে ভবিষ্যতে একই ধরনের কাজ করলে আরও কঠোর শাস্তি পেতে হবে বলে হুঁশিয়ারি করা হয়েছে সাব্বির- আল আমিনকে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নজরদারি ও খবরদারি কমিটির হাতে ওই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার প্রমাণও নাকি আছে। যে কারণে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সুপারিশে বিসিবি সাব্বির ও আল-আমিনকে কাঠগড়ায় উঠায়।

তবে অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে মাঠের বাইরের গুরুতর অসদাচরণ কী? গুঞ্জন উঠেছে, সাব্বির-আল আমিনের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ আছে। তবে কি তাই? নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে, বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বে হোটেলে অসামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন সাব্বির ও আল আমিন।

তবে আল আমিন ও সাব্বিরের বিরুদ্ধে এর আগেও মাঠের বাইরে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছিল। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে বিশ্বকাপ চলাকালে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে দেশে ফেরত পাঠানো হয় আল আমিনকে।

দায়িত্বশীল সূত্রমতে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডের পর টেস্টের আগে ম্যানেজারের অনুমতি ছাড়া রাতে হোটেলের বাইরে গিয়ে অনেক রাত করে হোটেলে ফিরেছিলেন সাব্বির। যেটি দলের আইন বহির্ভূত। যদিও তখন তাঁকে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়।- ঢাকাটাইমস

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত