টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চবিতে শাটল ট্রেন অবরোধ

চট্টগ্রাম, ২৭ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::  কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীরকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগে ৫ দফা দাবীতে লাগাতার অবরোধের প্রথম দিন রবিবার সকালে হোস পাইপ কেটে দিয়ে রের লাইন অবরোধ করেছে ছাত্রলীগৈর একাংশ।

বিশ্ববিদ্যালয়গামী শাটল ট্রেন বাধা দিতে নগরীর ষোলশহর রেল ষ্টেশন এলাকায় সকালে দিয়াজ অনুসারীরা রেল লাইনের হোস পাইপ কেটে দেয় বলে জানায় ষোলশহর স্টেশন মাস্টার শাহাবুদ্দিন। এরপর থেকে শাটল ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

এর আগে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে গতকাল শনিবার রাতে পত্রিকা অফিসগুলোতে প্রেসবিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে ছাত্রলীগ দিয়াজ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ৫ দফা দাবীতে আজ থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক দেয়। এ নিয়ে চারবার ট্রেন অবরোধের মুখে পড়লো।

অবরোধের ফলে সকাল থেকেই বন্ধ রয়েছে ট্রেন চলাচল। রেলের দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে অবস্থানকারীরা শাটল ট্রেনের হোস পাইপ কেটে অবরোধ করেন কিছু শিক্ষার্থি। ফলে সকাল থেকে এখন পর্যন্ত কোনো ট্রেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়নি। রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তে তাই বর্তমানে ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

আন্দোলনের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আবু কাইজার রনি জাগো নিউজকে বলেন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান দিয়াজ ভাই আত্মহত্যা করতে পারেন না। এ ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আমরা মানি না। যতদিন পর্যন্ত সুষ্ঠু তদন্ত হবে না ততদিন আন্দোলন চলতে থাকবে। এদিকে সার্বিক বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করেও পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, গত ২০ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২নং গেট এলাকার নিজ বাসায় ঝুলন্ত অবস্থায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর মরদেহ পাওয়া যায়। ঘটনার দু`দিন পর ২৩ নভেম্বর ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয় আত্মহত্যার ফলে শ্বাসরোধ হয়ে দিয়াজের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু পরিবার এ প্রতিবেদন প্রত্যাখান করে দাবি করে দিয়াজকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। পরবর্তীতে ২৪ নভেম্বর দিয়াজের মা জাহেদা আমিন চৌধুরী বাদী হয়ে চট্টগ্রামের আদালতে ১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত