টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ভাত দিতে দেরি, পটিয়ায় বিয়ের অনুষ্ঠানে মারামারি, আহত ১০

চট্টগ্রাম, ২৫ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::  পটিয়ায় টেবিলে ভাত দিতে বিলম্ব হওয়াকে কেন্দ্র করে বিয়ে অনুষ্ঠানে বর ও কনের দুপক্ষের মারামারির ঘটনায় অন্তত ১০জন আহত। এ ঘটনায় কনের পিতা ও ভাইসহ আহতদের মধ্যে একজন চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

আহতরা হলেন, কনের পিতা- মোহাম্মদ জাফর (৫০), কনের ভাই জাহাঙ্গীর আলম (২৫), বর পক্ষের ইউপি মেম্বার মো. ইউছুপ (৫০), মো. মানিক (২৭), রিপন (২৪), খোরশেদ (২৮)।

শুক্রবার বেলা ৩টায় পৌরসদরের ৭নং ওয়ার্ড বাহুলী এলাকার একটি কমিউনিটি সেন্টারে ঘটনাটি ঘটে।  পরে পুলিশ পহরায় বিকেল ৫টায় বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে গেছে, উপজেলার কাশিয়াইশ ইউনিয়নের বাকখাইন গ্রামের নূর নবীর পুত্র মোহাম্মদ বেলালের সঙ্গে পটিয়ার কচুয়াই ইউনিয়নের মো. জাফর আলমের কন্যা আঁিখ আকতারের বিয়ের দিন ছিল শুক্রবার দুপুরে। জুমার নামাজ শেষে কিছু বরযাত্রী বাহুলী পার্টি কমিউনিটি সেন্টারে ভাত খেতে আসেন। টেবিলে ভাত দিতে বিলম্ব হওয়ায় অতর্কিতভাবে বরপক্ষের ৩-৪ জন যুবক একটি চেয়ার ছুঁড়ে মারে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র দু’পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে কচুয়াই ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান এস.এম ইনজামুল হক জসিম ও পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মো. শহীদসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। পরে বর মোহাম্মদ বেলালকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডেকে এনে পুলিশ পাহারায় বিয়ে সম্পন্ন করা হয়।

কচুয়াই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস.এম. ইনজামুল হক জসিম বলেন, ভাত খাওয়া নিয়ে বিয়ে অনুষ্ঠানে যারাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা ঠিক করেনি। খাওয়া নিয়ে প্রথমে হট্টগোল সৃষ্টি হলেও পরবর্তীতে তিনি (চেয়ারম্যান) নিজে থেকে বিয়ে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেছেন বলে জানান।

পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মো. শহীদ বলেন, বিয়ে অনুষ্ঠানে ভাত খাওয়া নিয়ে হামলার ঘটনার খবর পেয়ে তিনি দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। আহত কয়েকজনকে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান।

চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির মো. জাহাঙ্গীর জানায়, এ ঘটনায় গুরুত্বর আহত মানিক নামের এক যুবককে ভর্তি করা হয়েছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত