টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

হালিশহরের স্বামী খুন, প্রেমিকসহ স্ত্রী আটক

চট্টগ্রাম, ১৯ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):বন্দরনগরী  চট্টগ্রামের হালিশহর থানার মধ্যম রামপুর কেতুরা মসজিদ এলাকায় শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে  নিজ বাসায় খুন হয়েছে এক ব্যাক্তি।

ঐ বাসা থেকে পুলিশ আজ শনিবার সকালে  নিহত আব্দুল বাতেন খোকনের (৫৫) বাতেনের স্ত্রী জেসমিন আক্তার ও তার পরকিয়া প্রেমিক আলাউদ্দিনকে আটক করেছে।  আটক আলাউদ্দিন একই থানার নয়াবাজার এলাকার জনৈক জাফরের ছেলে। এবং জেসমিনের বাড়ি কুমিল্লা জেলার মনোহরদী উপজেলায়।

হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রণব চৌধুরী হত্যাকাণ্ড এবং দুজনকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, পরকিয়ার ঘটনার জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে আটককৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। আমরা এ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করে দেখছি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এলাকার লোকজন জানায়, নিহত বাতেন পেশায় ইলেবট্রিক মিস্ত্রি ছিলেন। তিনি তাবলিগ জামায়াতের সাথে দাওয়াতি কাজ করতেন। দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রীর পরকিয়া নিয়ে সংসারে অশান্তি চলছি। এর আগে স্ত্রী এসব অবৈধ সম্পর্কের বিষয় নিয়ে এলাকায় শালিশ বিচারও হয়েছে।

পাশের বাসিন্দা মুজিব নামে একজন জানান, বাতেনের সংসারে আসার আগে জেসমিনের আগে একবার বিয়ে হয়েছিল। সে বিয়ে ভেঙ্গে যাবার পর বাতেনের সাথে আবার বিয়ে হয়। এ সংসারে দুটি বাচ্চা রয়েছে।

প্রতিবেশিরা জানান, গত রাতে বাতেন বাইরে থেকে বাসায় গিয়ে স্ত্রীকে অপর এক যুবককের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেললে তারা দুজন মিলে বাতেনের বিশেষ অঙ্গ চেপে ধরে হত্যা করে। ঘটনার সময় বাতেনের আত্মচিৎকারে আসে পাশের লোকজন গিয়ে স্ত্রী জেসমিনকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। তখনো কেউ জানতো না বাসায় পরকিয়া প্রেমিক আলাউদ্দিন লুকিয়ে আছে।

হালিশহর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধারের পর দুই শিশুসহ জেসমিনকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ স্বীকার করেন প্রেমিকের সাথে মিলে সে স্বামীকে হত্যা করেছে করেছে। এবং ঘাতক প্রেমিক ঐ বাসার মধ্যে লুকিয়ে আছে।

এরপর পুলিশ সকাল ৮টার দিকে আবার এলাকায় গিয়ে কেতুরা মসজিদ সংলগ্ন ঐ বাসার তালা খুলে তল্লাশী চালিয়ে ফ্রিজের ভেতরে লুকিয়ে থাকা প্রেমিক আলাউদ্দিনকে আটক করে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত