টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চবি’র সুবর্ণজয়ন্তী: বন্দর নগরীতে উৎসবের আমেজ, হোটেল ব্যবসায় রমরমা

চট্টগ্রাম, ১৯ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস): উৎসবের নগরীতে পরিণত হয়েছে বন্দর নগরী চট্টগ্রাম।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ৫০ বছর ফুর্তিতে শহরজুড়ে সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা। নগরীর প্রতি প্রান্তেই এখন উৎসবের আমেজ। রঙিন হয়ে উঠেছে চট্টগ্রাম শহর। শুধু শহর নয়; শহরের সব হোটেলগুলোতেও উৎসবের আমেজ। ঈদের মতো ধর্মীয় অনুষ্ঠানেও এমন দৃশ্য দেখা যায় না।

চট্টগ্রাম নগরীর আবাসিক হোটেলের ব্যবসা এখন রমরমা। নগরীর খাবারের রেস্তোরাঁগুলোর কর্মীদের এখন দম ফেলার সময়ও নেই। একইসঙ্গে আজ শনিবার ও আগামীকাল রোববারের বাস, ট্রেন এবং বিমানের টিকিটও বুকিং হয়ে গেছে।

রেডিসন ব্লু বে ভিউ, পেনিনসুলা, ওয়েল পার্ক, হোটেল আগ্রাবাদ, হোটেল এভিনিউ, অর্কিড প্লাস বিজনেস হোটেল, হোটেল লর্ডস ইন, মোটেল সৈকতসহ ভালো মানের আবাসিক হোটেলগুলোতে উঠেছেন চবির সাবেক শিক্ষার্থীরা। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই দিনব্যাপী সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান শেষে এদের অনেকেই হোটেল ছাড়বেন আজ শনিবার।

অন্যদিকে বিপিএলের ৭টি দল মধ্যে পাঁচ তারকা হোটেল রেডিসন ব্লু বে ভিউতে অবস্থা করছে ৫টি। অন্য দুটি দল উঠেছে নগরীর অভিজাত হোটেল পেনিনসুলা এবং হোটেল আগ্রাবাদে। বিপিএলের কর্মকর্তারা হোটেলে অবস্থান করছেন। ফলে চট্টগ্রামে আবাসিক হোটেলগুলোতে এখন অনেক চাপ।

চবির সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে কানাডা থেকে আসা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিজ্ঞান বিভাগের ৫ম ব্যাচের শিক্ষার্থী প্রবাসী দম্পতি মহিউদ্দিন আলম ও সুলতানা মিলি। জিইসির ওয়েল পার্ক হোটেলে উঠেছেন তারা। এ দম্পতি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের হওয়ার পর আমরা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হই। পরবর্তীতে আর চট্টগ্রামে আসা হয়নি। দীর্ঘদিন পর এখানে আসতে পেরে অনেক ভালো লাগছে। দীর্ঘদিন যোগাযোগ ছিল না এমন কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে দেখা হয়েছে গতকালের র‍্যালিতে। আমাদের ছাত্রজীবনকে আবার ফিরিয়ে দিয়েছে এই সুবর্ণজয়ন্তী।

রুম বুকিং প্রসঙ্গে রেডিসন ব্লু বে ভিউ চট্টগ্রামের জনসংযোগ কর্মকর্তা তাখরিন খান বলেন, বিপিএলের ৫টি দল আমাদের হোটেলে উঠেছে। বিসিবির কর্মকর্তারাও এখানে আছেন। সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে চট্টগ্রাম আসা স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, ঢাকার মেয়র আনিসুল হকও আমাদের এখানে অবস্থান করছেন। এছাড়া চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করতে আসা অনেক অতিথি আমাদের হোটেলে রুম নিয়েছেন। বিদেশি মেহমানরাও আছেন। এখানে আপাতত কোনো রুম খালি নেই। আগামীকাল রোববার কিছু রুম খালি হবে।

হোটেল টাওয়ার ইন ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের কর্মকর্তা আশরাফ হোসেন জানান, আমাদের এখানে রুম সব বুকড। বিপিএলের কর্মকর্তারা আছেন; চবির সাবেক শিক্ষার্থীরা পরিবার নিয়ে আমাদের হোটেলে অবস্থান করছেন। আগামীকালও আমাদের এখানে অতিথিদের চাপ থাকবে।

হোটেল এভিনিউ এর ব্যবস্থাপক বদরুজ্জামান খান জানান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করতে আসা অনেকেই আমাদের হোটেলে উঠেছেন। সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে হঠাৎ চট্টগ্রামে হোটেল রুমের চাহিদা অনেক গুণ বেড়েছে।

এদিকে নগরীর দামপাড়ার হানিফ বাস কাউন্টারের ম্যানেজার বলেন, আমাদের এসি, ননএসি গাড়ির ১৯ ও ২০ নভেম্বরের টিকেট বিক্রি শেষ। অনেকেই টিকেটের জন্য বাড়তি দাম দিতে চাইলেও টিকেট না থাকায় তাদের ফিরিয়ে দিতে হয়েছে। অতিরিক্ত গাড়ি দেওয়ার জন্য কতৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। তবে আজ বিকেলের আগে কিছু বলতে পারছি না। অন্যান্য বাস কাউন্টারেও একই অবস্থা।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, সুবর্ণ, মহানগর, বিজয়, তুর্ণা নিশিতা, সোনার বাংলা এক্সপ্রেসসহ অন্যান্য আন্তঃনগর ট্রেনের ১৯, ২০, ২১ নভেম্বরের টিকেট বিক্রি হয়ে গেছে।

এদিকে সিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, নগরীতে এখন খেলা চলছে। আবার চবির ৫০তম জন্মদিন উদযাপন করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীরা চট্টগ্রামে অবস্থান করছেন। তাই আবাসিক হোটেলসহ নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে নিরাপত্তা বাবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত