টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বন্দরনগরীর ফুটপাতে বেঙ্গল মিটের শো রুম, উচ্ছেদ শীঘ্রই

প্রধান প্রতিবেদক
সিটিজি টাইমস ডটকম

bengal-meatচট্টগ্রাম, ১৮ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):  চট্টগ্রাম নগরীর দামপাড়ায় ফুটপাতে কনটেইনারের মধ্যে গড়ে তোলা বেঙ্গল মিটের শো রুম শীগ্রই উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়েছে সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। আজ শুক্রবার সকালে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সিটিজি টাইমস ডটকমকে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জায়গাটি সিটি করপোরেশনের এটা নিশ্চিত হয়েছি। সিটি করপোরেশন থেকে যে লাইসেন্স নেওয়া হয়েছে ইতোমধ্যে তা বাতিলের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, লাইসেন্সটি দেয়া হয়েছে মূলত পুলিশের সাথে সমঝোতা চুক্তিপত্রের বলে। এই শো রুম স্থাপনে কিভাবে চুক্তিপত্র করা হলো তাও জানতে চাওয়া হবে মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনারের কাছে।

প্রসঙ্গত, দামপাড়া বাওয়া স্কুলের বিপরীতে পাশে ফুটপাতে পণ্য পরিবহনের কনটেইনারে সম্পূর্ণ অস্থায়ীভাবে স্থাপন করা হয় বেঙ্গল মিট নামের রেডি চিকেনের শো রুম। পুলিশের অনুমোদন সাপেক্ষে এই শো রুম স্থাপন করা হয় বলে বেঙ্গল মিটের পক্ষ থেকে জানানো হয়। গত শুক্রবার শোরুমটি উদ্বোধন করেন সিএমপি কমিশনার ইকবার বাহার।

সূত্রমতে, নগরীর কোথাও কোনো স্থাপনা করতে অনুমোদন নিতে হয় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) থেকে। অথচ দুই সংস্থার কারো অনুমোদন নেওয়া হয়নি এই শো-রুম স্থাপনে।

এ বিষয়ে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, দামপাড়ায় ফুটপাতের উপরে কোনো স্থাপনা নির্মাণের জন্য সিডিএ থেকে কোনো অনুমোদন নেয়া হয়নি। আর অনুমোদনহীন স্থাপনা সিডিএ যেকোনো সময় উচ্ছেদ করতে পারে।

এদিকে সিটি করপোরেশনের সহকারী এস্টেট কর্মকর্তা এখলাছ উদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, জায়গাটির মালিক মেট্রোপলিটন পুলিশ নয়। জায়গাটি সিটি করপোরেশনের। আমাদের জায়গায় কিভাবে রেডি চিকেনের শো রুম করলো এর ব্যাখ্যা চেয়ে শিগগিরই নোটিশ প্রদান করা হবে বেঙ্গল মিটকে।

জায়গার মালিকানার বিষয়ে সিটি করপোরেশনের বক্তব্যের জবাবে ডিসি হেডকোয়ার্টার ফারুক আহমেদ বলেন, সড়ক ও জনপথ ১৯৬০ সালে আমাদের ভূমি অধিগ্রহণ করে, আর রাস্তা সম্প্রসারণ করেছে সিডিএ। তাই সিটি করপোরেশন এই জায়গার মালিক হতে পারে না।

ফুটপাত কীভাবে লিজ দেওয়া হলো জানতে চাইলে মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি হেডকোয়ার্টার ফারুক আহমেদ বলেন, আমরা আমাদের জায়গা লিজ দিয়েছি তাতে কোনো সমস্যা থাকার কথা নয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক ও প্রশাসন) শহীদ উল আলম বলেন, বিষয়টি নিয়ে কিছু বলতে চাচ্ছি না।

ফুটপাতের উপর এই শো রুম নিয়ে বিব্রত খোদ পুলিশ কর্মকর্তারাও। নগরীতে ট্রাফিক শৃঙ্খলায় আনতে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা উচ্চপদস্থ একজন কর্মকর্তা জানান, আমরা মাঠ পর্যায়ে ট্রাফিক পুলিশ ও ট্রাফিক সার্জেন্টদের দিয়ে ট্রাফিকে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে কাজ করি। এখন আমাদের বিভাগ থেকে এই দোকানের অনুমোদন দেওয়ায় এবং সিএমপির কমিশনার তা উদ্বোধন করাই আমরা অবাক হয়েছি। এ ঘটনা আমাদের লজ্জায়ও ফেলেছে।

সূত্র জানায়, একসেপশন লিমিটেডের অধীনে চালু হয়েছে বেঙ্গল মিট। জানতে চাইলে দ্য একসেপশনস লিমিটেডের চেয়ারম্যান সৈয়দ জালাল আহমেদ রুম্মান শো রুমটি যথোপযুক্ত হয়নি বলে স্বীকার করেন।

জালাল আহমেদ বলেন, মেট্রোপলিটন পুলিশ জায়গাটি পাঁচ বছরের জন্য লিজ দিয়েছে, তাই আমরা নিয়েছি। আর প্রতিযোগিতামূলক বাজারে রাস্তার পাশের একটি লোকেশন চাচ্ছিলাম আমরা। তবে নগরীতে আরো পাঁচ জায়গায় আউটলেট (শোরুম) হবে সেগুলো সঠিক স্থানে করা হবে।

পার্কিং নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, হ্যাঁ, আপনার ধারণা সঠিক। পুনাকের সামনে গাড়ি টার্ন নেয়ার সময় একধরনের জ্যাম হয়, ওয়াসার মোড়ে একধরনের জ্যাম হয়। আর এই দুইয়ের মাঝখানে আউটলেটটি হওয়ায় যানজটের বিষয়টিও আমাদের মাথায় রয়েছে।

পণ্য পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ৪০ ফুট দৈর্ঘ্য কনটেইনারের ভেতর এই আউটলেট করলেন কেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মেট্রোপলিটন পুলিশ হয়তো আমাদের অনুমোদন দিয়েছে। তারপরও যদি লিজ বাতিল করে তাহলে চলে যেতে হবে এবং সেজন্য কনটেইনারের মধ্যে করেছি।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত