টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে আইন অমান্য করে যত্রতত্র কনভেনশন সেন্টার!

এস এম ইব্রাহিম
প্রধান প্রতিবেদক, সিটিজি টাইমস ডটকম

cccচট্টগ্রাম, ১৬ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রাম প্যাগন গার্মেন্টস লিমিটেড বন্ধ হয়ে যায় ২০০১ সালে। বন্ধ এ গার্মেন্টস কারখানায় ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে এক্সক্লুসিভ কনভেনশন সেন্টার। বিয়ে ও উৎসবে কনভেনশন সেন্টারটি প্রতিদিন ভাড়া দেওয়া হচ্ছে এক থেকে দেড় লাখ টাকায়।

কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা আয় করলেও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) অনুমতি ছাড়াই গড়ে ওঠা কনভেনশন সেন্টারটিতে নেই গাড়ি পার্কিংয়ের পর্যাপ্ত জায়গা! ফলে কনভেনশন সেন্টারটির সামনে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ গনি বেকারি টু জামালখান সড়কে প্রতিদিন দুপুর থেকে সন্ধ্যায় পর্যন্ত লেগে থাকছে ভয়াবহ যানজট।

চট্টগ্রাম মহানগরীর ভিআইপি এলাকা হিসেবে পরিচিত জামালখানের এই সরু সড়কের পাশেই গড়ে তোলা হয়েছে কনভেনশন সেন্টারটি। যা নির্মাণে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) কোন অনুমোদন নেওয়া হয়নি।

একইভাবে চট্টগ্রামের ব্যস্ততম জিইসি মোড়ে জেনারেল ইলেকট্রিক কো¤পানি লিমিটেড কারখানার খোলস পাল্টে চউকের অনুমোদন ছাড়াই গড়ে তোলা হয়েছে জিইসি কনভেনশন সেন্টার। অবৈধ এই কনভেনশন সেন্টারটির কারণে জিইসি মোড়, গরিবুল¬াহ শাহ হাউজিং সোসাইটি এলাকায় মাত্রাতিরিক্ত যানজটে পড়ে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে নগরবাসীকে।

অনুমোদন ছাড়াই নগরীর মুরাদপুরের মোহাম্মদপুর এলাকায় এন মোহাম্মদ কনভেনশন সেন্টার, আন্দরকিল¬ার সিরাজউদ্দৌলা সড়কে ১৩তলা আবাসিক ভবনে দ্বিতীয় তলায় প্যারাগন কনভেনশন সেন্টার, একই সড়কে হাফিজ পার্ক কনভেনশন সেন্টার, জিইসি মোড়ের গরীবুল¬াহ শাহ মাজারের সামনে কে কে স্কয়ার কনভেনশন সেন্টার, ষোলশহর ২ নম্বর গেটে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের পাশে আবাসিক ভবনে জিন্নুরাইন কনভেনশন সেন্টার গড়ে তোলা হয়েছে।

চউক সূত্র জানায়, বন্দরনগরী চট্টগ্রামে গত কয়েকবছরে ১২টি কনভেনশন সেন্টার গড়ে তোলা হয়েছে। এরমধ্যে নগরীর কাজীর দেউড়ি এলাকায় গড়ে তোলা সেনাকল্যাণ কনভেনশন সেন্টারসহ ৫টি কনভেনশন সেন্টার অনুমোদন নিয়েছে!

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অথরাইজড অফিসার-১ মোহাম্মদ মনজুর হাসান এ প্রসঙ্গে বলেন, অনুমোদন ছাড়া সম্পূর্ণ অপরিকল্পিতভাবে কনভেনশন সেন্টার গড়ে তোলায় ইতোমধ্যে পাঁচটি কনভেনশন সেন্টারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশ দেওয়ার দীর্ঘদিন পরও কনভেনশন সেন্টারের মালিকরা এখনো কোন জবাব দেননি।

এছাড়া এন মোহাম্মদ কনভেনশন সেন্টার, জিন্নুরাইন কনভেনশন সেন্টার বাণিজ্যিক অনুমোদন নিয়ে নকশা পরিবর্তন করে কনভেনশন সেন্টার করায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

চউকের অথরাইজড অফিসার-২ মোহাম্মদ শামীম বলেন, প্যারাগন কনভেনশন সেন্টার, হাফিজ ও শাফা আর্কেডকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এক্সক্লুসিভ কনভেনশন সেন্টারসহ অন্যগুলো স¤পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। অচিরেই তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি জানান, চট্টগ্রামে প্রভাবশালী রাজনৈতিক, ব্যবসায়ী ও ডেভেলপার মালিকরা ইমারত নির্মাণ বিধিমালা ২০০৮ কে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে অপরিকল্পিতভাবে একের পর এক কনভেনশন সেন্টার গড়ে তুলছে। এসব প্রতিষ্ঠানের কয়েকটিকে নোটিশ দিলেও পাত্তা দিচ্ছেন না মালিকরা।

তবে এসব অবৈধ প্রতিষ্ঠানে গ্যাস লাইন, বিদ্যুৎ ও ওয়াসার সংযোগ বন্ধে ওয়াসার প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা, কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কো¤পানির উপ-মহাব্যবস্থাপক এবং পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলী খুলশী বরাবরে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

চউকের অথরাইজড অফিসার-২ মোহাম্মদ শামীম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ওয়াসা, কর্ণফুলী ও পিডিবি অবৈধ হওয়া সত্তে¡ও ১১টি কনভেনশন সেন্টারেই সংযোগ দিয়েছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে চউকের চিঠি পাঠানোর সত্যতা স্বীকার করে ওয়াসার প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা কাজী আবদুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আর পিডিবির গণসংযোগ কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান এ রকম কোনো চিঠি পাননি বলে জানিয়েছেন।

জানতে চাইলে এক্সক্লুসিভ কনভেনশন সেন্টারের স্বত্বাধিকারী বিজয় কুমার চৌধুরী বলেন, চউক থেকে বাণিজ্যিক ভবনের অনুমতি নিয়ে কনভেনশন সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেছি। এর আগে এ ভবনে একটি গার্মেন্টস ছিল। সিডিএর ইঞ্জিনিয়াররা কিছু না বুঝে কনভেনশন সেন্টারের জন্য আলাদা অনুমতি নিতে হবে বলে ভুল তথ্য দিয়েছেন।

প্যারাগন কনভেনশন সেন্টারের মালিক ইঞ্জিনিয়ার ইফতেখার হোসেন বলেন, বাণিজ্যিক অনুমোদন নেওয়ায় চউক থেকে পৃথকভাবে কনভেনশন সেন্টার করার জন্য অনুমতি নেওয়া হয়নি। এ জন্য অনুমতি নেওয়ারও কোনো প্রয়োজন নেই।

জিন্নুরাইন কনভেনশন সেন্টারের ম্যানেজার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, বাণিজ্যিক ভবনের অনুমোদন নিয়েই কনভেনশন সেন্টার করা হয়েছে। কনভেনশন সেন্টারের জন্য নতুন অনুমোদন নিতে হবে বিষয়টি আমার জানা নেই।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত