টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কাদেরের আশ্বাসে অবরোধ উঠল শাহবাগে

shahbagচট্টগ্রাম, ১৫ নভেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::  ব্রাহ্মণড়িয়ার নাসিরনগরসহ দেশের বিভিন্নস্থানে সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের প্রতিবাদসহ বেশ কয়েকটি দাবিতে শাহবাগ অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকা শিক্ষার্থীরা তাদের কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছে। দুপুরে শাহবাগে এসে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের পক্ষে দলটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শিক্ষার্থীদের সড়ক থেকে সরে যাওয়ার অনুরোধ করলে তারা অবরোধ প্রত্যাহার করেন। পরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করতে রওনা হন।

এর আগে সোয়া ১১টা থেকে ‘সাধারণ শিক্ষার্থী’ ব্যানারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। বিক্ষোভে নাসিরনগর, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে হামলা, ভাঙচুর ও নির্যাতনের প্রতিবাদ করেন এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। তাদের আন্দোলনের ফলে শাহবাগ মোড় দিয়ে চলাচল করা সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ থাকায় এর প্রভাব পড়ে আশপাশের প্রতিটি সড়কে। আর দুটি হাসপাতালে আসার মূল সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়েন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও হাসপাতাল এবং বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনরা।

শুরু থেকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হকের পদত্যাগ দাবি করে স্লোগান দিতে থাকেন। একইসঙ্গে নাসিরনগর ও গাইবান্ধায় হামলর ঘটনায় প্রশাসনের ব্যর্থতার অভিযোগ করেন। অবিলম্বে তারা সকল সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা বন্ধের দাবি জানান।

এদিকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের সড়ক থেকে সরে যেতে বারবার অনুরোধ করা হলেও তারা সরেনি। সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কারো পক্ষ থেকে দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস না দিলে তারা সড়ক থেকে না সরার কথা জানান। অবশেষে দুপুরের দিকে ওবায়দুল কাদেরের পক্ষ থেকে আশ্বাস পেয়ে আন্দোলরত শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক এবং হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাসগুপ্ত।

শাহবাগে এসে ঢাবি উপাচার্য বলেন, ‘জঘন্য এই হামলার বিচারের দাবি পুরো বাংলাদেশের। আপনাদের আন্দোলনের প্রতি আমাদের সমর্থন থাকবে। আশা করি সরকার শিগগির হামলায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন করবে এবং দোষীদের সর্বোচ্চ বিচার নিশ্চিত করবে।’

পরে শিক্ষার্থীরা নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচি অনুযায়ী আগামী শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিন্দু শিক্ষার্থীরা নাসিরনগরে লংমার্চ করে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা প্রদান করবে। একই দাবিতে গত শুক্রবারও দিনভর শাহবাগ মোড়ে বিক্ষোভ করেছিল শিক্ষার্থীরা।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত