টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সাংবাদিক হেলাল হুমায়ুনের দুই দফা জানাযা সম্পন্ন

hচট্টগ্রাম, ৩১  অক্টোবর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে মরহুম সাংবাদিক হেলাল হুমায়ুনের দ্বিতীয় দফা জানাজা শেষে তার কফিনে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন সংগঠন।

চট্টগ্রামের প্রবীণ সাংবাদিক ও দৈনিক নয়াদিগন্তের চট্টগ্রাম ব্যুরোচীফ হেলাল হুমায়ুন দু দফা নামাজে জানাযা সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টায় নগরীর বায়তুশ শরফ মাদ্রাসা প্রাঙ্গন এবং সকাল ১১টায় জামাল খান প্রেসক্লাব চত্ত্বরে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রেসক্লাবে ফুলেল শ্রদ্ধায় শেষ বিদায় জানানো হয় মরহুম হেলাল হুমায়ুনকে। চট্টগ্রামে প্রেসক্লাব, মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে তাঁর কফিনে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

জানাযায় চট্টগ্রামে ফেডারেল সাংবাকি ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন ,চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম মহানগর,উত্তর, দক্ষিন জেলা বিএনপি, আওয়ামীলীগ, জাপা, ইসলামী ঐক্যজোট, খেলাফত আন্দোলনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা অংশ গ্রহন করেন।

বাদে আসর তাঁর গ্রামের বাড়ি সাতকানিয়ায় সর্বশেষ জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে পিতা-মাতার কবরের পাশে তাঁকে দাফন করা হবে।

তিনি গতকাল রোববার সন্ধ্যা ৭টায় চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিলাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুসে রোগে আক্রান্ত ছিলেন।

একাধারে কলামিষ্ট ও সামাজিক সংগঠক সাংবাদিক হেলাল হুমায়ুন বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের অধিকারী। তিনি দীর্ঘ সাংবাদিকতা জীবনে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী সদস্য, চট্টগ্রাম মেট্্েরাপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সহ সভাপতি, চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন সাংবাদিক সমবায় সমিতির সাবেক নির্বাচিত সহ সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির সাবেক নিবাচিত সদস্য এবং বিভিন্ন সামাজিক-সংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন।

এছাড়া দৈনিক দেশ বাংলা,জাতীয় দৈনিক অর্থনীতি,খবরপত্র সহ বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের চট্টগ্রাম ব্যুরোচীফ এর দায়িত্ব পালন করেছেন।

মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি ও চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান ছিলেন। হেলাল হুমায়ুন স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

১৯৮২ সালে সাংবাদিকতা পেশায় যোগদান করে তিনি। এ বর্নাঢ্য জীবনে তিনি অসংখ্য প্রবন্ধ এবং বই লিখেছেন। মরহুম হেলাল হুমায়ুনের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার চরতি ইউনিয়নে তালগাঁ গ্রামে। তার জন্ম ১৯৫৬ সালে ৬ জুলাই। তার পিতা কবি হাকীম ইসমাঈল হিলালী ছিলেন একজন এলাকার প্রখ্যাত ব্যক্তি ও হেকিমি চিকিৎসক।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত