টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ভুল করিনি, তাই ‘সরি’ বলবো না: মাশরাফি

চট্টগ্রাম, ১১ অক্টোবর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):  মিরপুরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে ঘটে যাওয়া ঘটনায় নিজেদের তেমন কোনো দোষই দেখছেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।এ জন্য দু:খ প্রকাশের দরকার নেই বলে মনে করেন তিনি। দু:খ প্রকাশ করবেনও না, স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

বুধবার চট্টগ্রামে হবে সিরিজের ফাইনাল ম্যাচটি। তার আগে বারবার উঠে আসছে দ্বিতীয় ম্যাচের সেই ঘটনা। এ ঘটনায় তেঁতে রয়েছে ইংলিশরা। তবে জরিমানা হলেও মাশরাফি একেবারেই নির্ভার।

মঙ্গলবার ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বলেন,‘ আসলে উইকেট পাওয়ার পর আমরা ওরকম আনন্দ প্রায় সময়ই করি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও আমরা এর আগে এমন উদযাপন করেছি। আমার মনে হয় না আমরা ভুল ছিলাম। তাই এর জন্য ‘সরি’ও বলতে চাই না। মাঠে এমন উদযাপন সব দলই করে। হ্যাঁ, নতুন একটা নিয়ম হয়েছে উদযাপনের মাত্র নিয়ে। আমরা ওটা জানতাম না। নতুন নিয়মে হয়তো একটু বাড়াবাড়ি হয়েছে। কিন্তু এটা সে পর্যায়ে ছিল না যে, ব্যাপারটা বেশি দূর গড়াতে পারে। ম্যাচ রেফারি দেখেছেন। তিনি জরিমানা করেছেন। এটা আমরা মেনে নিয়েছি।’

রবিবার মিরপুরে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জস বাটলারের আউটের পর মাশরাফিরা বাধন হারা উদযাপনে মেতে ওঠে। কিন্তু সেই উদযাপন পছন্দ হয়নি ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলারের।ছুড়ে মারেন উত্তপ্ত বাক্য।এমনকি বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের দিকে তেড়ে আসতেও দেখা গেছে তাকে।
এই ঘটনায় অধিনায়ক মাশরাফি ও সাব্বির রহমানের ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ করে জরিমানা করা হয়।

ঘটনাটা ঘটে ইংল্যান্ড ইনিংসের ২৮ তম ওভারে। বল করছিলেন তাসকিন আহমেদ। প্রথম বলে পুরোপুরি পরাস্ত হন বাটলার। এলবির জোরালো আবেদন করেন তাসকিন এবং পুরো দল। কিন্তু বাংলাদেশি আম্পায়ার শরফুদৌল্লা ইবনে সৈকত সেই আবেদনে সাড়া না দিলে রিভিউ চান মাশরাফি। রিভিউয়ের সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের পক্ষে আনন্দে মেতে ওঠে টাইগাররা। কিন্তু এরপরই দারুণ প্রতিক্রিয়া দেখান ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার।

ম্যাচ শেষেও ছড়িয়ে পড়ে এটির রেশ। করমর্দনের সময় জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গে ধাক্কা লাগে তামিম ইকবালের। পেছনেই থাকা বেন স্টোকস হুট করে এগিয়ে ধাক্কা মারেন তামিমকে। তামিমও এগিয়ে যান। সাকিব এসে শান্ত করার চেষ্টা করেন পরিস্থিতি।

রবিবারের এসব ঘটনা ভুলে বুধবারের ‘ফাইনালে’ দল শান্ত স্বাভাবিক থাকবে বলে জানিয়েছেন মাশরাফি। তিনি বলেন,‘ আমি আসলে ব্যাপারটা কখনওই বড় করে দেখেনি। হিট অফ মমেন্টে কিছু বাড়াবাড়ি হতে পারে। ১৬ বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছি। অনেক বাজে কথা সহ্য করেও মাঠে শান্ত থেকেছি। আসলে ওটা আমাদের উৎসব ছাড়া অন্য কিছু ছিল না। কাউকে আঘাত দেওয়া আমাদের লক্ষ্য ছিল না।’ ঢাকাটাইমস

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত