টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সাকার রায় ফাঁসের মামলায় আইনজীবী কারাগারে

imageচট্টগ্রাম, ০৯ অক্টোবর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস): মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া বিএনপির নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মানবতাবিরোধী অপরাধের রায় ফাঁসের মামলায় দণ্ডিত পলাতক আসামি অ্যাডভোকেট মেহেদী হাসানকে কারাগারে পাঠিয়েছে ট্রাইব্যুনাল।

সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে এ আসামি আজ রবিবার আত্মসমর্পণ করে জামিনের প্রার্থণা করলে বিচারক কেএম শামসুল আলম তা নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর মামলাটিতে উক্ত আসামিসহ ৪ জনের ৭ বছর করে কারাদ- এবং ১০ হাজার টাকা করে অর্থদ- প্রদান করেন একই ট্রাইব্যুনাল।

এছাড়া ব্যারিষ্টার ফখরুল ইসলামের ১০ বছর কারাদ- এবং ১০ লাখ টাকা অর্থদ- প্রদান করেন।

অন্যদিকে সাকার স্ত্রী ফারহাদ কাদের চৌধুরী ও ছেলে হুমাম কাদের চৌধুরীকে বেকসুর খালাস দেয় ট্রাইব্যুনাল।

এর আগে মামলাটিতে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করে ট্রাইব্যুনাল। এরপর মামলাটিতে ২৫ জন সাক্ষীর মধ্যে ২১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে ওই মামলায় ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন গোয়েন্দা পুলিশ ডিবির ইন্সপেক্টর মো. শাহজাহান।

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদেরকে মৃত্যুদন্ডাদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। তবে রায় ঘোষণার একদিন আগেই সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্য এবং আইনজীবীরা রায় ফাঁসের অভিযোগ তোলেন। তারা ‘রায়ের খসড়া কপি’ সংবাদকর্মীদের দেখান।

পরে ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার একেএম নাসির উদ্দিন মাহমুদ বাদী হয়ে ওই বছর ২ অক্টোবর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে শাহবাগ থানায় একটি মামলা করেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত