টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সহজ নিবন্ধনে জনপ্রিয়তা পাবে ডটবাংলা

itচট্টগ্রাম, ০৭ অক্টোবর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):  বহুল প্রত্যাশিত ডটবাংলা ডোমেইন ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছে বাংলাদেশ। গত ৫ অক্টোবর ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এই তথ্য নিশ্চিত করার পর দেশে তথ্যপ্রযুক্তি জগতে আছে আনন্দের আমেজ। তবে ডোমেইন প্রক্রিয়া সহজ করার দাবি করছেন প্রযুক্তিবিশারদরা। নইলে এর ব্যবহার জনপ্রিয় করা যাবে না বলে শঙ্কা তাদের।

ডটবাংলা পাওয়ার ঘটনা দেশের জন্যে বড়ো গৌরবের বিষয় বলে মনে করছেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি ও তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর একমাত্র রাষ্ট্র বাংলাদেশ, যে দেশের মানুষ ভাষার জন্য সংগ্রাম করেছে। জীবনও দিয়েছে।এর বিনিময়ের আমরা বাংলাকে পেয়েছি মাতৃভাষা হিসেবে। এদেশের মানুষ বাংলা ডোমেইন ব্যবহার করতে পারবে না তা হতে পারে না।’

ডটবাংলার সুবিধার বিষয়টি সামনে এনে তিনি বলেন, ‘বাংলায় ডোমেইনের নাম লিখতে পারবো এটাই বড় সুবিধা। আমরা অনলাইনে বাংলা ব্যবহার করি, কিন্তু যে ডোমেইন নামটা থাকে সেটায় রোমান হরফ ব্যবহার করতে হয়। আমরা বাংলা হরফ ব্যবহার করতে পারি না। আমি মনে করি এটাই বড় সুবিধা।’

বেসিস সভাপতি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীর শতকরা ৯৬ ভাগের একমাত্র ভাষা হচ্ছে বাংলা। অতএব আমি যখন এই জনগোষ্ঠীর সাথে যোগাযোগ স্থাপন করতে চাই, তখন আমাকে বাংলা ভাষা ব্যবহার করতে হবে। অনলাইনে যোগাযোগে মাতৃভাষা ব্যবহারের প্রবণতা কিন্তু পৃথিবীজুড়েই বাড়ছে।’

এদিকে পশ্চিমবঙ্গ ও সিয়েরা লিওন ডটবাংলা ডোমেইন পেতে ডোমেইন নাম বরাদ্দকারি আন্তর্জাতিক সংস্থা ইন্টারনেট করপোরেশন অব অ্যাসাইনড নেমস অ্যান্ড নাম্বারস-আইসিএএনএন এর কাছে আবেদন করেছিলো। তাদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বরাদ্দ পেল বাংলাদেশ। তবে বাংলাদেশ ২০১২ সালে একবার এই ডোমেইন ব্যবহারের অনুমতি পেয়েও সেটি সক্রিয় করতে পারেনি।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান বলেন, ‘এটা খুব আনন্দের বিষয় যে আমরা বাংলায় ডোমেইন ব্যবহার করতে পারবো। কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে আগের যে ডোমেইন ডটবিডি বার বার ডাউন হয়ে যায়। যার কারণে ব্যবহারকারীরা আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। এমন যেন ডটবাংলার ক্ষেত্রে না হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘ডটবাংলার নিবন্ধন প্রক্রিয়া যেন সহজভাবে করা যায়। নিবন্ধন করতে গিয়ে যেন আমলতান্ত্রিক হয়রানিতে পড়তে না হয়। তবেই দেশের মানুষ এর সুফল পাবে।’

ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের সংগঠন ই-ক্যাবের সভাপতি রাজিব আহমেদ বলেন, ‘ডটবাংলা একটি সেবা, এটাকে সেবার মত করেই দেখতে হবে। এটাকে জটিলতামুক্ত রেখে পরিচালিত করতে হবে।আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতসহ বিভিন্ন দেশ তাদের ডোমেইনকে নিরবচ্ছিন্ন সেবা দেয়। আমাদের দেশেও তা নিশ্চিত করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিটিসিএলের মনিটরিং টিম যাতে সচল থাকে, সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। ২৪ ঘন্টা সেবা দিতে পারলে ডটবাংলা ডোমেইন অবশ্যই জনপ্রিয়তা পাবে।’

ডটবাংলা ডোমেইন বরাদ্দ পাওয়ার ঘটনায় উচ্ছ্বসিত ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। দেশবাসীকে সবার আগে এই খবর জানাতে ৫ অক্টোবর তিনি ফেসবুকে বার্তা দেন, ‘‘অবশেষে ‘ডটবাংলা ডোমেইন’ বাংলাদেশের অনুকূলে অনুমোদিত!’’- ঢাকাটাইমস

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত