টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সীতাকুণ্ডে স্বামীকে হত্যার পর স্ত্রীর আত্মসমর্পণ

চট্টগ্রাম, ০৬ অক্টোবর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস): সীতাকুণ্ড উপজেলার মাদাম বিবির হাট খাদেম পাড়া এলাকায় স্ত্রীর হাতে খুন হয়েছেন স্বামী মো. জাহাঙ্গীর আলম (৪৮) নামে এক ড্রাইভার। নিহত জাহাঙ্গীর আলম ফেনী জেলার দাগন ভুঁইয়া থানার ভবানিপুর গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে মাদামবিবির হাট খাদেমপাড়া এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। এছাড়া তিনি আবুল খায়ের স্টীল মিলের গাড়ি ড্রাইভার।

পুলিশ বুধবার গভীর রাতে একটি ভাড়া বাসা থেকে লাশটি উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

ঘাতক স্ত্রী খদিজা বেগম হত্যার দশ ঘণ্টা পর থানায় গিয়ে স্বেচ্ছায় খুনের কথা স্বীকার করেন।ঘটনার বিবরণে জানা যায়।

বুধবার ভোরে নিজ বাসায় জাহাঙ্গীর ড্রাইভার তার স্ত্রীর সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ঘরে থাকা দিয়ে পাথর (উতে) দিয়ে জাহাঙ্গীরের ঘারে এবং মুখমন্ডলে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলে জাহাঙ্গীর নিহত হয়। পরে স্ত্রী সারাদিন খুনের বোঝা মাথায় নিয়ে ঘুরাফেরা করেন।

লাশটি গুম করতে চেয়ে ব্যর্থ হয়ে এক পর্যায়ে সন্ধ্যার সময় মাদাম বিবির হাট হইতে দুই সন্তানকে নিয়ে ২০ কিমি হেটে থানায় গিয়ে স্বামীকে খুন করেন বলে স্বেচ্ছায় স্বীকার করেন।

পুলিশ রাত দুইটার সময় মাদাম বিবির হাট খাদেম পাড়া নেভীর গেইট এলাকায় নাসির কন্ট্রাক্টরের ভাড়ার ঘর থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

এ ব্যাপারে ঘাতক দুই সন্তানের জননী খদিজা বেগম জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ মদ্যপান করে সারারাত তাকে নির্যাতন চালাতো।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে তাকে নির্যাতনের পর বুধবার ভোরে এক পর্যায়ে স্বামীর সঙ্গে কথা কাটাকাটির সময় ঘরে থাকা পাথর (উতে) দিয়ে তাকে আঘাত করে। সঙ্গে সঙ্গে সে লুটিয়ে পড়ে।

পরে সারাদিন জাহাঙ্গীরের কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে রাতে আমি থানায় গিয়ে খুনের ঘটনাটি নিজেই স্বীকার করলাম।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি তদন্ত মোজাম্মেল জানান, বুধবার রাতে দুই সন্তানের জননী খদিজা বেগম থানায় এসে তার স্বামীর খুনের ঘটনা বর্ণনা করলে আমরা রাত একটার সময় লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করি। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন হাতে না পাওয়া পর্যন্ত এই বিষয়ে কোন কিছু বলা যাচ্ছে না।

তবে এ ঘটনার আসামি হিসেবে ঘাতক স্ত্রীকে আটক করা হয়েছে।

 

মতামত