টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রাম নগর বিএনপির পুনর্গঠন শুরু, ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত

bnpচট্টগ্রাম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::চট্টগ্রাম নগর বিএনপির আওতাধীন ৪১টি ওয়ার্ড কমিটির মধ্যে ৩৯টি কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন করে সম্মেলনের সিদ্ধান্ত হয়েছে।একই সাথে নগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণারও কথা জানান নেতৃবৃন্দ।

আজ সোমবার দুপুরে নগরের একটি রেস্টুরেন্টে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন এ কথা ঘোষণা করেন নগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, আগামী একমাসের মধ্যে মহানগর বিএনপির পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। তিনি বলেন, মহানগর কমিটি গঠনে অতীতের দুর্নাম ঘুচানো হবে এবার।

সম্মেলনে ডা. শাহাদাত বলেন, এক নেতার একপদ এ নীতিতেই চট্টগ্রাম মহানগর এবং নগরের ৪১ টি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হবে। তিনি আজ সোমবার থেকে নগরীর ৪১ টি ওয়ার্ডের পূর্বের সকল কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করে নতুন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষনা করেন।

যে সমস্ত নেতা এখনো একাধিক পদে বহাল আছেন তাঁদেরকে একটি পদ রেখে অন্যসব পদ ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ জানান।

ডাক্তার শাহাদাত বলেন, আমরা এখন একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি। দেশে গনতন্ত্র অবরুদ্ধ, মানবাধিকার পদে পদে লংঘিত,রাস্ট্রযন্ত্র,আ’ লীগ আর নির্বাচন কমিশন একাকার হয়েগেছে।

তিনি স্বাধীনতা সংগ্রামে অবদানের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ সকলের প্রতি সম্মান জানিয়ে বলেন, রাস্ট্রের উচিত সকলকে সমান সম্মান দেয়া। কারো স্বাধীনতা পদক কেড়ে নিলেও বীরোত্তম পদক তো কেড়ে নেয়া যাবেনা। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ নির্মুলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। অন্যথায় স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব প্রশ্নবিদ্ধ হবে।

এসময় মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর, মোশারফ হোসেন দিপ্তী, ইয়াচিন চৌধুরী লিটন, বিএনপি নেতা সামশুল আলম, আনদুল আজিজ,সাইফুল আলম,আশ্রাফ চৌধুরী, হারুন জামান,কামরুল ইসলাম, কাজী বেলাল, জিএম আইয়ুব, শাহ আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জানাগেছে, ৪১ ওয়ার্ডের মধ্যে তিন বছর মেয়াদ পূরণ না হওয়া কাট্টলী ও উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড কমিটি বহাল থাকবে। বাকি ৩৯টি ওয়ার্ড কমিটি ভেঙে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে। তাঁরা ওয়ার্ড কমিটি গঠনের জন্য সম্মেলনের প্রস্তুতি নেবেন। বড় ওয়ার্ডে ৫১ এবং ছোট ওয়ার্ডে ৩১ জনের আহ্বায়ক কমিটি করা হবে। চলতি মাসের ৩০ তারিখের মধ্যে এসব আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সভাপতি শাহাদাত হোসেন বলেন, একসঙ্গে ৩৯টি ওয়ার্ড ভেঙে তৃণমূল পর্যায়ে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নেতৃত্ব নির্বাচনের উদ্যোগ নিয়েছেন তাঁরা। প্রতি ওয়ার্ডের আহ্বায়ক কমিটিকে তিন মাস সময় দেওয়া হবে। প্রথম এক মাস তাঁরা সদস্য সংগ্রহ অভিযান চালাবেন। দ্বিতীয় মাসের প্রথম ১৫ দিনের মধ্যে কারা নির্বাচন করতে আগ্রহী, সেটা তাঁরা জানবেন। দ্বিতীয় মাসের শেষ ১৫ দিনের মধ্যে আগ্রহী প্রার্থীরা প্রচারণা চালাবেন। আর তৃতীয় মাস থেকে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে সম্মেলন ও ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে।

গত ৬ আগস্ট চট্টগ্রাম নগর বিএনপির তিন সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। নতুন কমিটির সভাপতি করা হয়েছে শাহাদাত হোসেনকে। তিনি বিদায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। আর বিদায়ী কমিটির সহসভাপতি আবু সুফিয়ানকে জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি করা হয়েছে। সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে নগর যুবদলের সাবেক সভাপতি আবুল হাসেমকে (বক্কর)।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত