টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আদরের সন্তানকে ছুঁড়ে দিয়েও বাঁচাতে পারেনি মা

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

accidenচট্টগ্রাম, ১৯  সেপ্টেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):: দুই বছরের আদরের পুত্র সাব্বিরকে কোলে নিয়ে সড়ক পার হচ্ছেন মা খালেদা। কিছু বুঝে উঠার আগেই দ্রুতগামী একটি বাস তার দিকে এগিয়ে আসছেন। এসময় নিজে বাসের চাকায় পিষ্ট হওয়ার আগে ছেলেকে বাঁচাতে ছুঁড়ে দিলেন মা খালেদা। তিনি ঘটনাস্থলে মারা গেলেন। ছেলে সড়কের আইল্যান্ডের সাথে ধাক্কা লেগে গুরত্বর আহত হয়। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায় শিশু সাব্বির। এমন মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বড়তাকিয়ায়। মিরসরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় মা-ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই উপজেলার বড়তাকিয়া এলাকায় এই দুর্ঘটনা রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় বড়তাকিয়া মাজার পার্শ্ববর্তী এলাকায় মহাসড়ক পারাপারের সময় চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী এস আলম পরিবহন (ঢাকা মেট্রো ব ১১-০৮০৪) এর একটি যাত্রীবাহী বাস চাপায় উপজেলার আমবাড়িয়া আমিনুর রহমানের স্ত্রী খালেদা আক্তার (৩৫) ঘটনাস্থলে মারা যায়।

খৈয়াছরা ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার নাছির উদ্দিন জানান, গৃহবধূর কোলে তার ২ বছরের শিশুপুত্র সাব্বিরও ছিল। মা বাসের নিচেই চাপা পড়ছে দেখে শিশুপুত্রকে বাঁচাতে সড়কে মাঝখানের ডিভাইডারে ছুড়ে দিয়েছিল। কিন্তু এতে শিশু সাব্বির গুরুতর আহত হলে প্রথমে স্থানীয় মাতৃকা হাসপাতালে এবং পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাতে শিশুটি মৃত্যুবরণ করে।

জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ এসআই ফরিদ উদ্দিন জানান, ঘাতক বাসটি আটক করে ফাঁড়িতে রাখা হয়েছে। ইউপি সদস্য নাছির উদ্দিন জানান, এমন মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় নিহতের স্বজনদের আহাজারিতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এদিকে সকাল ১১টায় বড়তাকিয়া এলাকায় চট্টগ্রাম থেকে নোয়াখালীগামী একটি বাস পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে গেলে জেসমিন (২৮), শাওন (১০), শাহাদাত (২২), সুজন (৩২) ও জাহানারাসহ (৪৫) ১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতরা স্থানীয় মাতৃকা হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।

মতামত