টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বন্দরনগরীতে কচুরিপানার নীচে লুকিয়ে রাখা শিশুর লাশ উদ্ধার

চট্টগ্রাম, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::নগরীর হালিশহর থানার বন্দর টোল রোডের গলিচিপা পাড়ায় কচুরিপানা ভর্তি একটি খাল থেকে শিশু মাহফুজের (০৭) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত মাহফুজ প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

সোমবার (০৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ছয়টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রণব চৌধুরী জানান, আল আমীনের স্ত্রী সান্তনা ও নিহত মাহফুজের মা সীমা সম্পর্কে বোন। সান্তনা বিভিন্ন সময়ে সুযোগ পেলেই তার বড় বোন সীমার বাসায় যেত।একারণে সান্তনার সাথে সীমার স্বামী মাহবুবের সাথে সম্পর্ক আছে বলে সন্দেহ করত আল আমীন। সন্দেহের পাশাপাশি কয়েকমাস আগে আল আমীন সাড়ে তিন হাজার টাকা ধার নিয়ে তা পরিশোধ না করায় মাহবুব তাকে মারধর করে। এর প্রতিশোধ নিতে আল আমীন সকালে মাহফুজকে সাগর দেখাতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে টোল রোডের গলাচিপা এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে মাহফুজের গলায় গামছা পেঁচিয়ে হত্যা করে লাশটি খালের কচুরিপানার নীচে চাপা দিয়ে বাসায় ফিরে আসে।

এদিকে মাহফুজকে খুঁজে না পেয়ে স্থানীয় লোকজন পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ আল আমিনকে সন্দেহ করে স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসময় খুনের দায় স্বীকার করে আল আমিন অকপটে স্বীকারোক্তি দেন।

পুলিশ কর্মকর্তা প্রণব জানান, আল আমীনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে লাশ লুকিয়ে রাখার বিষয়টি জানান। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সন্ধ্যায় খালের কচুরিপনার নীচ থেকে মাহফুজের লাশ উদ্ধার করা হয়।

আল আমীন ও মাহবুব দুই জনেই কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার বাসিন্দা। পেশায় রিকশা চালক আল আমীন হালিশহর বাস স্ট্যান্ড এলাকার আজিজ মিয়ার কলোনিতে এবং পেশায় রাজমিস্ত্রি মাহবুব সুন্দরী পাড়া এলাকায় থাকেন।

শিশু খুনের ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান ওসি।

মতামত